আজ ২৭শে বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১০ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

Screenshot 2020 1012 190501

আত্রাইয়ে চাঞ্চল্যকর রফিকুল হত্যার রহস্য উদঘাটন

প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক : নওগাঁর আত্রাইয়ে চাঞ্চল্যকর আলহাজ্ব রফিকুল ইসলাম হত্যার রহস্য উদঘাটন করেছে আত্রাই থানা পুলিশ। পুলিশ এ হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত ১ জন কে গ্রেফতার করেছে।

 

গ্রেফতারকৃত হলো উপজেলার খোলাপাড়া গ্রামের আক্তার হোসেনের ছেলে সুমন হোসেন (২৫)। গ্রেফতারকৃত সুমন পুলিশের নিকট এ হত্যাকান্ডের বিষয়ে স্বীকারোক্তি মূলক চাঞ্চল্যকর জবানবন্দী দিয়েছেন।

 

এ ব্যাপারে আত্রাই থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোসলেম উদ্দিন বলেন, গ্রেফতারকৃত সুমনের দেওয়া তথ্যমতে, কয়েক বছর আগে আত্রাই বেলি ব্রিজের উত্তরপার্শে এম আর এস সু গ্যালারী দোকান করার সময় সুমন দু’লক্ষ টাকা ধার নেয় রফিকুল ইসলামের কাছে থেকে।

 

এর মধ্যে এক লক্ষ টাকা সে পরিশোধ করে বাঁকি এক লক্ষ টাকা আজ কাল করে বছর পেরিয়ে গেলে টাকার জন্য চাপ দিলে গত ১০ অক্টোবর টাকা দেওয়ার দিন ধার্য্য করে সুমন। দিন ধার্য্য করে গত ৫ অক্টোবর সোমবার সুমনসহ চারজন গোপন মিটিং করে টাকা যেন না দিতে হয় সেজন্য রফিকুলকে হত্যার পরিকল্পনা করে।

 

টাকা দেওয়ার ধার্য্যকৃত দিন গত ১০ অক্টোবর রাত্রি আনুমানিক সারে ৮টার দিকে সুমন মোবাইল করে তার দোকান হতে টাকা নিয়ে যেতে বলে রফিকুলকে। এর মধ্যে দোকানের একটি শার্টার বন্ধ এবং আরেকটি অর্ধেক নামিয়ে রেখে রফিকুল দোকানে ঢোকামাত্র ঐ শার্টার নামিয়ে তারা কয়েকজন মিলে রফিকুলের হাত-পা ও মুখ বেঁধে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে বস্তাবন্দি করে দোকানের নিচে কয়েক ঘন্টা গোডাউনে রাখে। রাত্রি গভীর হলে বস্তাবন্দি লাশ আত্রাই নদীতে ফেলে দেয়।

 

ওসি আরো বলেন, নিহত হাজী রফিকুল ইসলামের স্ত্রী দৌলতুন্নেছা বাদি হয়ে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। এবং আমরা হত্যার সাথে জড়িত সুমনকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়েছি।এবং গ্রেফতারকৃত সুমনকে সোমবার দুপুরে নওগাঁ জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।