আজ ৩০শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৩ই জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

132653article l 20201133412073443654000

আদিত্যকে বিয়ে, যেভাবে শ্বেতার মন গলল

প্রথমবার্তা প্রতিবেদকঃ গত ১ ডিসেম্বর বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হয়েছেন আদিত্য নারায়ণ ও শ্বেতা আগারওয়াল। দীর্ঘ ১০ বছর ধরে সম্পর্কে আবদ্ধ থাকার পর অবশেষে নিজেদের সম্পর্কে আনুষ্ঠানিক সিলমোহর দিয়ে দিয়েছেন তাঁরা।

২০১০ সালে তাঁদের অভিষেক ছবি ‘শাপিত’-এর শুটিংয়ে গিয়ে আদিত্য়র সঙ্গে শ্বেতার প্রথম পরিচয় হয়। প্রথম দিকে বহুবার শ্বেতার সঙ্গে কথা বলার চেষ্টা করেন আদিত্য। প্রথম দিকে নাকি একাধিকবার প্রেমের প্রস্তাব দিয়েছিলেন তিনি। আর বারবার প্রত্যাখ্যান করেছিলেন শ্বেতা।

প্রথম দিকে তাঁদের মধ্যে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক ছিল। আদিত্যর কথায়, শ্বেতা তাঁর লাভ অ্যাট ফার্স্ট সাইট ছিল। এর পরই তিনি বুঝতে পেরেছিলেন, এই সেই মেয়ে যাঁর সঙ্গে তিনি জীবন কাটাতে চান। তখনই ঠিক করেছিলেন, এই মেয়ের সঙ্গেই সম্পর্কে যাবেন।

আদিত্যর প্রেমে নাকি সবচেয়ে বেশি সাহায্য করেছিলেন তাঁর মা দীপা। কিউপিডের ভূমিকায় তাঁদের প্রেম সম্পর্ক গড়ে তুলতে সাহাস্য করেছিলেন দীপা, জানিয়েছেন আদিত্য। আদিত্য আরো জানান, শুরুর দিকে কখনো মিষ্টি করে, কখনো ঘুরিয়ে নানাভাবে তাঁকে প্রত্যাখ্যান করেছিলেন শ্বেতা।

আদিত্য জানান, তাঁর প্রেমে সবচেয়ে বেশি সাহায্য করেছিলেন তাঁর মা দীপা। তিনি বলেন, ‘আসলে আমার ধন্য়বাদ বলা উচিত মা-কে। মা বলেছিল, পরেরবার শ্বেতার সঙ্গে দেখা হলে আমায় একবার বলিস।’ এরপর ধীরে ধীরে তাঁরা ডেটিং শুরু করেন।

১১ বছরের পুরনো বান্ধবী শ্বেতাকে বিয়ে করেন গায়ক উদিত নারায়ণের ছেলে আদিত্য। তা-ও বাবার জন্মদিনেই বিয়ে করলেন আদিত্য। মুম্বাইয়ের জুহুতে একটি ইস্কনের মন্দিরে বিয়ে করেন আদিত্য ও শ্বেতা।

গত ১০ বছর ধরে লিভ ইন রিলেশনশিপে ছিল আদিত্য-শ্বেতা। এই চাঞ্চল্যকর মন্তব্য করেছেন বর্ষীয়ান গায়ক উদিত নারায়ণ। ১০ বছরের লিভ ইন রিলেশনশিপে থাকলেও নিজেদের সম্পর্কের ব্যাপারে কোনো দিন কাউকে জানতে দেননি আদিত্য-শ্বেতা। বিয়ের পর কাশ্মীরে হানিমুনে গিয়েছিলেন তাঁরা।

সম্প্রতি ইন্ডিয়ান আইডল ১২-এর ফ্যামিলি অ্যাপিসোডে সপরিবারে হাজির হন হোস্ট আদিত্য নারায়ণ। সেখানে উপস্থিত ছিলেন গায়ক উদিত নারায়ণ, দীপা নারায়ণ ও শ্বেতা আগারওয়াল।