আজ ১০ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৫শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

আনোয়ার গ্রুপ অব ইন্ডাস্ট্রিজের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান মানোয়ার হোসেন
আনোয়ার গ্রুপ অব ইন্ডাস্ট্রিজের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান মানোয়ার হোসেন

আনোয়ার গ্রুপ অব ইন্ডাস্ট্রিজের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান মানোয়ার হোসেন

প্রথমবার্তা প্রতিবেদকঃ দূরদর্শী উদ্যোক্তা এবং দেশীয় শিল্প-বাণিজ্যের পথিকৃৎ আলহাজ আনোয়ার হোসেনের প্রতিষ্ঠিত দেশের অন্যতম বৃহত্তর শিল্প পরিবার আনোয়ার গ্রুপ অব ইন্ডাস্ট্রিজের নতুন চেয়ারম্যান হিসেবে মানোয়ার হোসেন নির্বাচিত হয়েছেন। চেয়ারম্যান হিসেবে নির্বাচিত হওয়ার আগে মানোয়ার হোসেন প্রতিষ্ঠানটির গ্রুপ ম্যানেজিং ডিরেক্টর হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। আজ মঙ্গলবার প্রতিষ্ঠানটির পক্ষ থেকে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানানো হয়েছে।

 

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, চলতি মাসের ১৭ আগস্ট ৮৩ বছর বয়সে রাজধানী ঢাকার একটি হাসপাতালে আলহাজ আনোয়ার হোসেন শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। বাবা আলহাজ আনোয়ার হোসেনের সুযোগ্য সন্তান মানোয়ার হোসেন বাবার পদে স্থলাভিষিক্ত হয়েছেন।

 

বিজ্ঞপ্তিতে আরো বলা হয়, আনোয়ার গ্রুপের ১৮৭ বছরের বাণিজ্যিক পথচলার পরম্পরায় ১৯৫২ সালে আলহাজ আনোয়ার হোসেন তাঁর পারিবারিক ব্যবসায়ের বৈচিত্র্য আনার উদ্যোগ নেন। ২০০৮ সালে ডান অ্যান্ড ব্র্যাডস্ট্রিট কর্তৃক দেশের সবচেয়ে বৈচিত্র্যময় গ্রুপ হিসেবে আনোয়ার গ্রুপ অব ইন্ডাস্ট্রিজ স্বীকৃতি অর্জন করে। গ্রুপটি বর্তমানে বস্ত্র, নির্মাণসামগ্রী, পলিমার, পাট, রিয়েল এস্টেট, ফার্নিচার ও হোম ডেকর, স্টিল, সিমেন্ট, ব্যাংক, সিমেন্ট শিট, ইনস্যুরেন্স, নন-ব্যাংক ফিন্যানশিয়াল ইনস্টিটিউশন, ক্যাপিটাল মার্কেট, অটোমোবাইল ইত্যাদিতে ব্যাবসায়িক কার্যক্রম পরিচালনা করছে। আনোয়ার গ্রুপ দেশের প্রথম শিল্পোদ্যোগ হিসেবে বহু কিছু প্রতিষ্ঠা করেছে, যার মধ্যে পলিয়েস্টার ফ্যাব্রিক, পিটিএফই টেপ, জিআই ফিটিংস, ইউপিভিসি ফিটিংস, ইলেকট্রিক্যাল কেবল এবং সুপার এনামেল কপার ওয়্যার প্রস্তুত অন্যতম। দেশের প্রথম বেসরকারি বাণিজ্যিক ব্যাংকের যাত্রাও শুরু হয় আনোয়ার গ্রুপের পৃষ্ঠপোষকতায়।

 

আলহাজ আনোয়ার হোসেন ও বিবি আমেনার জ্যেষ্ঠ পুত্র মানোয়ার হোসেন। তিনি ভারতের দার্জিলিংয়ে অবস্থিত সেন্ট পলস স্কুলে অধ্যয়নরত ছিলেন। পরবর্তী সময়ে তিনি যুক্তরাষ্ট্রের নিউ হ্যাম্পশায়ার বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়ন করেন এবং ১৯৯২ সালে এমবিএ সম্পন্ন করেন। ১৯৯৩ সালে তিনি পারিবারিক ব্যবসায় যুক্ত হন। ১৯৯৯ সালে তিনি সিটি ব্যাংকের ভাইস চেয়ারম্যান হিসেবে নির্বাচিত হন। তিনি বাংলাদেশ ফিন্যান্সের চেয়ারম্যান, বাংলাদেশের স্টিল ম্যানুফ্যাকচারিং অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি, মধুমতি ব্যাংকের ডিরেক্টর এবং বিডি সিকিউরিটিজ, বিডি ক্যাপিটাল হোল্ডিংস এবং সিটি জেনারেল ইনস্যুরেন্স কম্পানির স্পন্সর প্রমোটার।