আজ ৩রা আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৭ই জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

165640vr

এক সিরিজে ২০ ক্রিকেটার খেলিয়ে ভারতের ‘রেকর্ড’

প্রথমবার্তা প্রতিবেদকঃ অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ৪ টেস্টের সিরিজে ভারতের হয়ে খেলেছেন ২০জন ক্রিকেটার! ক্রিকেট ইতিহাসে প্রথমবারের মতো এই ঘটনা ঘটেছে। এতজন ক্রিকেটারকে খেলানোর মূল কারণ যদিও চোট। অস্ট্রেলিয়ান পেসারদের ভয়ংকর সব শর্ট বলে একের পর এক ভারতীয় ক্রিকেটার চোট পেয়ে সিরিজ থেকে ছিটকে গেছেন। তাদের বদলে এই সিরিজে অভিষেক হয়েছে একাধিক ক্রিকেটারের। একবারও উইনিং কম্বিনেশন ঠিক রাখা সম্ভব হয়নি।

ভারতীয় দলের হয়ে ৪টি টেস্টেই খেলেছেন এমন ক্রিকেটার মাত্র দুই জন, আজিঙ্কা রাহানে এবং চেতেশ্বর পূজারা। তাছাড়া চলতি বোর্ডার-গাভাস্কার সিরিজে আরও ১৮ জন ক্রিকেটার ভারতের হয়ে খেলেছেন। প্রথম টেস্টের পর পিতৃত্বকালীন ছুটি নিয়ে দেশে ফিরে আসেন বিরাট কোহলি। সেই ম্যাচেই চোট পেয়েছিলেন পেসার মোহাম্মদ শামি। দ্বিতীয় টেস্টে অভিষেক হয় ব্যাটসম্যান শুভমন গিল এবং পেসার মোহাম্মদ সিরাজের। এছাড়াও পৃথ্বী শ এবং ঋদ্ধিমান সাহার বদলে দলে আসেন রবীন্দ্র জাদেজা এবং ঋষভ পন্থ।

মেলবোর্নে দ্বিতীয় টেস্ট জিতে নেয় আজিঙ্কা রাহানের ভারত। কিন্তু সেই জয়ী দল সিডনিতে নামাতে পারেননি রাহানেরা। চোট পান পেসার উমেশ যাদব, তার বদলে সিডনিতে তৃতীয় ম্যাচে দলে অভিষেক ঘটে নবদীপ সাইনির। ওপেনার মায়াঙ্ক আগরওয়ালের বদলে দলে আসেন রোহিত শর্মা। সিডনিতে একাধিক চোটে ভারতীয় দল জর্জরিত হয়ে যায়। যে কারণে শেষ টেস্টের টস হওয়ার আগ পর্যন্ত দল ঘোষণা করা সম্ভব হয়নি।

আজ থেকে শুরু হওয়া শেষ টেস্টে চোটের জন্য বাদ পড়েন হনুমা বিহারী, রবীন্দ্র জাদেজা, রবিচন্দ্রন অশ্বিন এবং যশপ্রীত বুমরাহ। এমতাবস্থায় ওয়াশিংটন সুন্দর, শার্দূল ঠাকুর এবং টি নটরাজনকে দলে নিতে নির্বাচকদের বাধ্য হতে হয়েছে। চতুর্থ টেস্টে অভিষেক হয়েছে ওয়াশিংটন এবং নটরাজনের। তাছাড়াও দলে ফিরেন শার্দূল এবং মায়াঙ্ক। ১৯৬১ সালের পর এক সিরিজে ভারতীয় দলে এত জন ক্রিকেটার খেলার ঘটনা প্রথমবার। এর আগে আগে ২০১৮ সালে ইংল্যান্ড সফরে ১৭ জন ক্রিকেটের খেলেছিলেন। ১৯৫৯ সালের ইংল্যান্ড সফরেও খেলেছিলেন ১৭ জন ক্রিকেটার।