আজ ৫ই বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৮ই এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

সানি লিওন

এখনই সানি লিওনকে গ্রেপ্তার করা যাবে না!

প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক: সাবেক পর্ন তরকা সানি লিওনের বিরুদ্ধে উঠেছে ২৯ লাখ টাকার আর্থিক কারচুপির অভিযোগ। এ কারণেই গত সপ্তাহেই তিরুবনন্তপুরমে বলিউডের এই অভিনেত্রীকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে পুলিশের পক্ষ থেকে।

 

অবস্থা ভালো না দেখে গ্রেপ্তারির ভয়ে মঙ্গলবারই আগাম জামিনের আবেদন করে ফেলেছিলেন তিনি। তারই পরিপ্রেক্ষিতে বুধবার কেরালার উচ্চ আদালত থেকে স্থানীয় পুলিশকে দেওয়া নির্দেশনায় বলা হয়, এখনই সানি লিওনকে গ্রেপ্তার করা যাবে না।

 

মঙ্গলবার সানি লিওনসহ তার স্বামী ড্যানিয়েল ওয়েবার ও করণজিৎ বোরা উচ্চ আদালতে অন্তর্বতীকালীন জামিনের আবেদন জানিয়েছিলেন, সেই পরিপ্রেক্ষিতেই বুধবার বিচারপতি অশোক মেনন তাদের আবেদন মঞ্জুর করে বলিউড অভিনেত্রীর গ্রেপ্তারিতে স্থগিতাদেশ জারি করে।

 

সিআরপিসি ৪১ (এ) ধারা অনুযায়ী সানি লিওনের নোটিস না দেওয়া পর্যন্ত তাদের গ্রেপ্তারি স্থগিত রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে আদালতের পক্ষ থেকে। এই পিটিশন মঞ্জুর করে অভিযোগকারী সিয়াজকে নোটিশও জারি করেছেন বিচারপতি মেনন।

 

ভারতের স্থানীয় গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়, সানি লিওনের বিরুদ্ধে কেরালা পুলিশে অভিযোগ দায়ের করেছিলেন সিয়াজ নামে কোচির এক অনুষ্ঠানের উদ্যোক্তা। সেই পরিপ্রেক্ষিতেই গত শনিবার সানির বয়ান রেকর্ড করে কেরলের এরনাকুলম ক্রাইম ব্রাঞ্চ।

 

স্থানীয় পুলিশ বলছে, সানির বিরুদ্ধে আর শিয়াস নামে একজন ইভেন্ট ম্যানেজমেন্ট কম্পানির কো-অর্ডিনেটর অভিযোগ দায়ের করেন। তাঁর অভিযোগ, ২০১৬ সাল থেকে পাঁচটি অনুষ্ঠানের জন্য বেশ কয়েকটি কিস্তিতে মোট ২৯ লাখ টাকা নিয়েছিলেন সানির ম্যানেজার।

 

তবে ওই একটা অনুষ্ঠানেও যোগ দেননি অভিনেত্রী। অভিযোগের ভিত্তিতে শিয়াস অভিনেত্রীর সঙ্গে আর্থিক লেনদেনের নথিপত্রও জমা দেন পুলিশের কাছে।

 

সেই অভিযোগের ভিত্তিতেই সানির সঙ্গে তিরুবন্তপুরমের পোভারে দেখা করেন এরনাকুলম ক্রাইম ব্রাঞ্চের কর্মকর্তারা, যেখানে কিনা সানি লিওন এই মুহূর্তে শুটিংয়ে ব্যস্ত। তবে এর মাঝেই সংশ্লিষ্ট ইস্যুতে আরো বিপাকে পড়ে কেরালার উচ্চ আদালতে অন্তর্বর্তীকালীন জামিনের আবেদন করে রাখেন সানি লিওন ও তাঁর স্বামী ড্যানিয়েল।