আজ ৩০শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৩ই জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

করোনা

করোনা পরীক্ষায় বিকল্প নমুনা ‘বেশি কার্যকর’

প্রথমবার্তা প্রতিবেদকঃ কভিড-১৯ শনাক্ত করতে সাধারণত নাক কিংবা মুখ থেকে নমুনা সংগ্রহ করা হয়। এবার পায়ুপথ থেকে নমুনা (শ্লেষ্মা) নিয়ে করোনা পরীক্ষা শুরু করেছে চীন। দেশটির চিকিৎসকরা দাবি করেছেন, এই পদ্ধতিতে কভিড-১৯ পরীক্ষা আরো বেশি কার্যকর। যদিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে চীনের অনেক মানুষ এই পদ্ধতির তীব্র সমালোচনা শুরু করেছে। চীনের রাষ্ট্রায়ত্ত টেলিভিশন চ্যানেল সিসিটিভির এক প্রতিবেদনে জানানো হয়, গত সপ্তাহে রাজধানী বেইজিং ও আশপাশের কয়েকটি শহরে এই পদ্ধতিতে কভিড-১৯ পরীক্ষা চালু হয়েছে।

 

বিশেষ করে যারা হোম কোয়ারেন্টিনে আছে তাদের ক্ষেত্রে এই পদ্ধতি বেশি প্রয়োগ করা হচ্ছে। আবার আক্রান্ত ব্যক্তি সেরে উঠেছে কি না, সেটি জানার জন্যও এই পদ্ধতি বেশি ফলপ্রসূ মনে হচ্ছে।

 

স্থানীয় চিকিৎসকরা বলছেন, তাঁরা নাক ও পায়ুপথের নমুনা পরীক্ষা করে দেখেছেন। তাতে পায়ুপথের নমুনায় শনাক্তের হার বেশি পাওয়া যাচ্ছে। অর্থাৎ পায়ুপথের নমুনা পরীক্ষা বেশি কার্যকর।

 

কারণ হিসেবে তাঁরা বলছেন, করোনাভাইরাসের অস্তিত্ব ফুসফুসের চেয়ে পায়ুপথে বেশি দিন টিকে থাকে। তবে চীনের অনেকেই এই পদ্ধতিকে ‘বিব্রতকর’ বলে মন্তব্য করেছে।

 

অনলাইনভিত্তিক সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে একজন লিখেছেন, ‘নিজেকে সৌভাগ্যবান মনে হচ্ছে এই ভেবে যে আমাকে এ ধরনের পরীক্ষার মুখে পড়তে হয়নি।’

 

আরেকজন লিখেছেন, ‘আমাকে দুইবার পায়ুপথের নমুনা দিতে হয়েছে। প্রথমবার এতটাই ভয় পেয়েছিলাম যে এক নার্স দ্বিতীয়বার আমার নমুনা নেওয়ার সাহস পায়নি।’অবশ্য সিসিটিভির প্রতিবেদনে এটা নিশ্চিত করা হয়েছে যে পায়ুপথ থেকে নমুনা সংগ্রহের এই পদ্ধতি গণহারে প্রয়োগ করা হবে না। সূত্র : টাইমস অব ইন্ডিয়া।