আজ ৯ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৪শে জুলাই, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

185101highcourt 1

চট্টগ্রামের যুগ্ম জেলা জজ সরকার কবির উদ্দিনকে হাইকোর্টে তলব

প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক:চট্টগ্রামের ৩য় যুগ্ম জেলা জজ আদালতের বিচারক সরকার কবির উদ্দিনকে তলব করেছেন হাইকোর্ট। আগামী ৩১ মার্চ তাঁকে হাজির হয়ে হাইকোর্টের আদেশ প্রতিপালন না করার বিষয়ে ব্যাখা দিতে বলা হয়েছে।

বিচারপতি জে বি এম হাসান ও বিচারপতি মো. খায়রুল আলমের হাইকোর্ট বেঞ্চ সোমবার রুলসহ এ আদেশ দেন। চট্টগ্রামের পাঁচলাইশের তাজুল ইসলামের ছেলে বেলাল হোসেনসহ সংশ্লিষ্টদের করা এক আবেদনে এ আদেশ দেন আদালত। আদালতে আবেদনকারী পক্ষে আইনজীবী ছিলেন অ্যাডভোকেট মো. আছরারুল হক ও আমিনুর রহমান চৌধুরী। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল তুষার কান্তি রায়।

অ্যাডভোকেট আছরারুল হক জানান, পাঁচলাইশ এলাকার একটি জমি নিয়ে বিরোধের জের ধরে হাটহাজারীর ফরাহাদাবাদের হাজী ফারুক আহমেদের ছেলে মাহাফুজুর রহমানসহ চারজন চট্টগ্রামের আদালতে একটি ঘোষণামূলক মামলা করেন। মামলাটি চট্টগ্রামের ৩য় যুগ্ম জেলা জজ আদালতের বিচারক সরকার কবির উদ্দিনের আদালতে বিচারাধীন। একই ঘটনায় পাঁচলাইশের তাজুল ইসলামের ছেলে বেলাল হোসেনসহ সংশ্লিষ্টরা অন্য আদালতে পৃথক মামলা করেন। কিন্তু পরবর্তীতে ৩য় যুগ্ম জেলা জজ আদালতের বিচারক সরকার কবির উদ্দিনের আদালতে বিচারাধীন মামলার তথ্য জানতে পেরে বেলাল হোসেনরা পক্ষভূক্ত হতে ৩য় যুগ্ম জেলা জজ আদালতে আবেদন করেন। চট্টগ্রামের ৩য় যুগ্ম জেলা জজ সরকার কবির উদ্দিন ২০১৯ সালের ২৯ মে এ আবেদন খারিজ করে দেন। এ আদেশের বিরুদ্ধে একই বছরের ২৭ আগস্ট হাইকোর্টে রিভিশন আবেদন করেন বেলাল হোসেন গং। হাইকোর্ট ২০১৯ সালের ২ সেপ্টেম্বর ৩য় যুগ্ম জেলা জজ আদালতে চলমান মামলার কার্যক্রমের ওপর তিনমাসের স্থগিতাদেশ দেন। পরবর্তীতে এই স্থগিতাদেশের মেয়াদ বাড়ানো হয়। হাইকোর্টের এসব আদেশের কপি ৩য় যুগ্ম জেলা জজ আদালতে দাখিল করা হলেও ওই আদালত তা নথিভূক্ত করে মামলার কার্যক্রম চলমান রাখা হয়। পরবর্তীতে হাইকোর্টের আদেশ না মানায় ওই আদালতের বিচারকের বিরুদ্ধে হাইকোর্টে আদালত অবমাননার আবেদন করা হয়। এ আবেদনের ওপর শুনানি নিয়ে ওই বিচারককে তলব করলেন হাইকোর্ট।