আজ ৩০শে চৈত্র, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১৩ই এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

024517Tika 04 kalerkantho pic

টিকা নিলেই প্রাইজ বন্ড শাড়ি লুঙ্গি ফুল…

প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক:মহামারি থেকে মুক্তির প্রত্যাশা নিয়ে গতকাল রবিবার থেকে সারা দেশে শুরু হয়েছে করোনাভাইরাসের গণটিকাদান কর্মসূচি। এর মধ্যে কিছু এলাকায় ব্যতিক্রম চিত্রের দেখা মিলছে। কালের কণ্ঠ’র প্রতিনিধিদের পাঠানো প্রতিবেদনে দেখা গেছে, কোনো এলাকায় এই টিকা নিতে উৎসাহিত করতে প্রাইজ বন্ড উপহার দেওয়া হয়েছে। কেউ বা ফুল দিয়ে বরণ করেছেন। কোনো এলাকায় ভিআইপিরা টিকা নিতে প্রতিযোগিতা করেছেন। কোথাও বা ভিআইপিদের দেখা মেলেনি। কোনো এলাকার জনপ্রতিনিধিরা টিকা গ্রহণকারীদের উপহার দিয়েছেন শাড়ি, লুঙ্গি ইত্যাদি।

নাটোরের গুরুদাসপুর প্রতিনিধি জানান, গুরুদাসপুরে টিকা নিতে উৎসাহী করতে ৪১ জন নারী-পুরুষকে শাড়ি ও লুঙ্গি উপহার দিয়েছেন সংসদ সদস্য আব্দুল কুদ্দুস। অন্যদিকে করোনার টিকা নিলেই ১০০ টাকার প্রাইজ বন্ড মিলেছে নাটোরের বড়াইগ্রাম উপজেলায়। এটাও এই সংসদ সদস্যের নির্বাচনী এলাকা। বড়াইগ্রাম প্রতিনিধি জানান, করোনার টিকা নিতে উৎসাহী করতে এবং টিকাসংক্রান্ত অপপ্রচার বন্ধের আহ্বান জানিয়ে প্রথম দিন টিকা গ্রহণকারীকে ১০০ টাকার প্রাইজ বন্ড দেওয়া হয়েছে। গতকাল সকালে বড়াইগ্রাম উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে টিকাদান কার্যক্রম উদ্বোধন শেষে সংসদ সদস্য অধ্যাপক আব্দুল কুদ্দুস ব্যক্তিগত উদ্যোগে ওই প্রাইজ বন্ড প্রদান করেন। তবে শারীরিক সমস্যা থাকায় সংসদ সদস্য নিজে টিকা নিতে পারেননি।

কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি জানান, জেলার পাকুন্দিয়ায় টিকা গ্রহণকারী প্রথম ১০ জনকে উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. শারমিন শাহনাজ ফুল দিয়ে বরণ করে উৎসাহ দিয়েছেন।

পাবনা প্রতিধি জানান, জেলার ফরিদপুর উপজেলায় এদিন নির্ধারিত সময়ে সাধারণ মানুষের মধ্যে কেউ টিকা নেননি। টিকা কার্যক্রমের এমন অবস্থা দেখে বিকেল পৌনে ৩টার দিকে টিকা দিতে নিবন্ধনকারীদের উপজেলা স্বাস্থ্য দপ্তরের সঙ্গে যোগাযোগ করে কেন্দ্রে আনার চেষ্টা করা হয়। তাতেও কাজ হয়নি। টিকা নেওয়ার জন্য নিবন্ধন করেছিলেন ২০০ জন। পরে বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে পৌর মেয়র খ ম কামরুজ্জামান মাজেদ টিকা নিয়ে কর্মসূচির উদ্বোধন করেন। তাঁর সঙ্গে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আলী আহমদ ও দুজন নার্স টিকা নেন।

বরিশালের গৌরনদীতে সরকারি কর্মচারীদের কেউ কেউ টিকা নিলেও জনপ্রতিনিধি এবং স্থানীয় রাজনীতিকরা প্রথম দিনে টিকা নেননি। স্বাস্থ্য দপ্তর থেকে কয়েকজন রাজনৈতিক নেতা ও জনপ্রতিনিধিদের টিকা গ্রহণের জন্য আমন্ত্রণ জানানো হলেও তাঁরা প্রথম দিনেই টিকা নিতে অনীহা প্রকাশ করেন।

তবে টিকা নিতে ভিআইপিদের প্রতিযোগিতার খবরও পাওয়া গেছে পঞ্চগড়ে। আমাদের পঞ্চগড় প্রতিনিধি জানান, শুরুতেই টিকা নেন সংসদ সদস্য মজাহারুল হক প্রধান, জেলা প্রশাসক সাবিনা ইয়াসমিন, জেলা ও দায়রা জজ শরীফ হোসেন হায়দার, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ইউসুফ আলী, সিভিল সার্জন ডা. ফজলুর রহমান, এনএসআইয়ের উপপরিচালক আনোয়ার হোসেন মনির, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আরিফ হোসেন, পঞ্চগড় প্রেস ক্লাবের সভাপতি সফিকুল আলম, জ্যেষ্ঠ সাংবাদিক শহীদুল ইসলাম শহীদসহ প্রশাসন, স্বাস্থ্য বিভাগ ও বিভিন্ন সরকারি অফিসের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা। এ সময় ভিআইপিদের মধ্যে কে আগে টিকা নেবেন, তা নিয়ে তোড়জোড় লক্ষ করা যায়।

জয়পুরহাটের পাঁচবিবিতে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও উপজেলা প্রশাসনের কোনা কর্মকর্তা টিকা নেননি। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ছিলেন না কেউ। নিবন্ধন না থাকায় তাঁরা টিকা গ্রহণ করতে পারেননি বলে জানা গেছে।

ময়মনসিংহ থেকে আঞ্চলিক প্রতিনিধি জানান, জেলার নান্দাইল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে করোনার টিকা নেওয়ার পর তৃতীয় লিঙ্গের সুমনা (২৫) নিজের অভিব্যক্তি বর্ণনা করতে গিয়ে বলেন, ‘অনেকে অনেক কথা কইছিন। দেইছ না, পরে দে, মাথা ঘুরাইয়া পইরা যাইবে, বিছনাততে উড়তাততে না। কিন্তু টিহা (টিকা) নিয়া বুঝলাম খালি পিড়পাড় মতন একটু কামুড় দিছিন। অহন তো কিছুই বুঝি না।’