আজ ৩রা আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৭ই জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

171844kalerkantho

দুর্যোগে পাশে দাঁড়িয়ে সাধারণ মানুষের মনে দাগ কেটেছে ছাত্রলীগ’

প্রথমবার্তা প্রতিবেদকঃছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে শেকৃবি শাখা ছাত্রলীগ এক শ শীতার্তের মাঝে কম্বল বিতরণ করেছে। আজ বৃহস্পতিবার সকাল ১১টায় তাদের কার্যালয়ের সামনে কম্বল বিতরণ করা হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. শহীদুর রশীদ ভূঁইয়া ও বিশেষ অতিথি হিসেবে কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. মো. নজরুল ইসলাম উপস্থিত ছিলেন। শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. মিজানুর রহমানের সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন শেকৃবি ছাত্রলীগের সভাপতি ও বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কৃষি শিক্ষা সম্পাদক এস. এম. মাসুদুর রহমান মিঠু।

এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন পোস্ট গ্রাজুয়েট স্টাডিজের ডিন অধ্যাপক ড. অলোক কুমার পাল, সাউরেস পরিচালক ড. মো. আব্দুর রাজ্জাক, সিড টেকনোলজি ইনস্টিটিউটের পরিচালক প্রফেসর ড. মো. ইসমাইল হোসেন, ছাত্র পরামর্শ ও নিদের্শনা পরিচালক অধ্যাপক ড. মো. ফরহাদ হোসেন, প্রক্টর ড. মো. হারুন-উর-রশিদ সহ শিক্ষক, কর্মকর্তা, কর্মচারী ও ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে অধ্যাপক ড. মো. শহীদুর রশীদ ভূঁইয়া বলেন, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ প্রতিষ্ঠাকালীন সময় থেকেই মানবতার কল্যাণে অসহায়, দুস্থ, খেঁটে খাওয়া মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে সবসময়। তারই ধারাবাহিকতায় আমাদের সবার উচিত যার যার ব্যক্তিগত দায়িত্বশীল জায়গা থেকে তাদের পাশে সামর্থ অনু্যায়ী দাঁড়ানো। আগামীতেও এ ধারা অব্যাহত থাকবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন। ছাত্রলীগের এই মহৎ উদ্যোগ নিঃসন্দেহে প্রশংসার যোগ্য এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসন এ রকম উদ্যোগে সব সময় পাশে থাকবে বলে তিনি আশ্বাস দেন।

কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. মো. নজরুল ইসলাম বলেন, ছাত্রলীগ মানুষের কল্যাণে কাজ করে যাচ্ছে। আমরা দেখেছি, ছাত্রলীগ কৃষকের ধান কেটে দিয়েছে। যেকোনো দুর্যোগে মানুষের পাশে দাঁড়াচ্ছে। এসব সাধারণ মানুষের মনে দাগ কেটেছে।

সংগঠনটির সভাপতি ও বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কৃষি শিক্ষা সম্পাদক এস এম মাসুদুর রহমান মিঠু বলেন, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের নির্দেশে ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষ্যে দুস্থদের কথা ভেবে আমরা এই উদ্যোগ গ্রহণ করি। করোনা মোকাবেলায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী এবং কেন্দ্রীয় কমিটির নির্দেশে শুরু থেকে জনগণের সেবায় শেকৃবি ছাত্রলীগ নিয়োজিত ছিল। ভবিষ্যৎতে আমরা সব ধরনের দুর্যোগ মোকাবেলায় প্রস্তুত থাকবো।