আজ ২৭শে বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১০ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

Screenshot 2020 1013 102341

ধর্ষণের বিরুদ্ধে পোস্ট করায় বশেমুরবিপ্রবির ছাত্রীকে ধর্ষণের হুমকি

প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক: ফেসবুকে ধর্ষণ এবং বিচারহীনতা নিয়ে পোস্ট দেওয়ায় গোপালগঞ্জের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের আলিফ লাইলা নামে এক ছাত্রীকে গণধর্ষণের হুমকি দেওয়া হয়েছে। ফেসবুকের মেসেঞ্জারে আলিফ লায়লাকে সোমবার আনুমানিক রাত ১টার দিকে এ হুমকি দেওয়া হয়।

ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী আলিফ লাইলা জানান, দেশে একের পর এক হওয়া ধর্ষণের ঘটনা এবং বিচারহীনতা নিয়ে ফেসবুকে পোস্ট দিয়েছিলেন। কিন্তু এসব পোস্টের জেরেই তাকেসহ তার মা এবং দুই বোনকে ধর্ষণের হুমকি দেওয়া হয়েছে।

তিনি আরো জানান, ‘হুমকিদাতা হাসান আল মামুন নিজেকে মাগুরা ছাত্রলীগের কর্মী হিসেবে দাবি করেছেন। হুমকি প্রদানকারী মামুন দাবি করেন তাদের হাজার হাজার কর্মী বাহিনী রয়েছে এবং আলিফ লায়লার ক্ষতি করতে তাদের ১ সেকেন্ড প্রয়োজন।

এসময় হুমকি প্রদানকারী নিজেকে ‘মুক্তা ভাই’ নামে একজনের কর্মী হিসেবে দাবি করেন এবং হুমকির মেসেজে বশেমুরবিপ্রবির ছাত্রলীগ কর্মী জাহাঙ্গীর আলমের নাম উল্লেখ করেন।

আইনি কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে আলিফ লায়লা জানান, ইতিমধ্যে এ ঘটনা মাগুড়া জেলা প্রশাসককে জানিয়েছেন। তবে তিনি লিখিত অভিযোগ না নিয়ে পরে কোনো সমস্যা হলে ব্যবস্থা গ্রহণের আশ্বাস দিয়েছেন। এছাড়া আগামীকাল এ ঘটনায় জিডি করা হবে।

এই ঘটনায় মাগুরা জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আলী হোসেন মুক্তার সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, রাজনীতির সঙ্গে জড়িত থাকায় তাকে প্রশ্নবিদ্ধ করার জন্যই উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে কেউ তার নাম ব্যবহার করেছে। তবে তিনি বিষয়টি জানার পরেই এই ফেসবুক আইডির বিষয়ে থানায় জিডি করেছেন এবং প্রয়োজনে ভবিষ্যতে আরো কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন।

বশেমুরবিপ্রবি ছাত্রলীগ কর্মী জাহাঙ্গীর আলম এ বিষয়ে বলেন, ‌’ছাত্রলীগকে প্রশ্নবিদ্ধ করতে ছাত্রলীগের নাম ব্যবহার করে এ ধরনের হুমকি প্রদান করার ঘটনা ঘটতে পারে। তবে যেহেতু আমাদের নাম জড়ানো হয়েছে তাই আমি চাই এই ব্যক্তিকে খুঁজে বের করে জানা হোক প্রকৃতপক্ষেই আমি জড়িত কিনা এবং এ ধরনের ঘটনায় যাদের সংশ্লিষ্টতা পাওয়া যাবে তাদের প্রত্যেককে বিচারের আওতায় আনা হোক।

এ বিষয়ে বশেমুরবিপ্রবির প্রক্টর ড. রাজিউর রহমান বলেন, ‘ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী আমাকে বিষয়টি জানিয়েছে। সে লিখিত অভিযোগ প্রদান করলে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরিয়াল বডি, ল সেল এবং যৌন নির্যাতন প্রতিরোধ সেল সমন্বিতভাবে কাজ করব এবং বিষয়টিকে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে প্রয়োজনীয় সব ব্যবস্থা গ্রহণ করব।