আজ ৪ঠা জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ১৮ই মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

নিষেধাজ্ঞা মুক্ত তসলিমা বললেন 'ফেসবুকে জিহাদিরা কর্মরত'
নিষেধাজ্ঞা মুক্ত তসলিমা বললেন 'ফেসবুকে জিহাদিরা কর্মরত'

নিষেধাজ্ঞা মুক্ত তসলিমা বললেন ‘ফেসবুকে জিহাদিরা কর্মরত’

প্রথমবার্তা প্রতিবেদকঃপ্রখ্যাত লেখিকা তসলিমা নাসরিনকে এক সপ্তাহের জন্য ব্যান করেছিল ফেসবুক কর্তৃপক্ষ। সম্প্রতি বাংলাদেশে ঘটে যাওয়া সাম্প্রদায়িক সহিংসতার প্রতিবাদ করায় তসলিমার আইডিতে একের পর এক রিপোর্ট করা হয়। সেই রিপোর্টের প্রেক্ষিতে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ তসলিমার আইডি এক সপ্তাহের জন্য ব্যান করে। সেই নিষেধাজ্ঞা থেকে অবশেষে মুক্ত হয়েছেন এই নারীবাদী লেখিকা।

 

ব্যান তুলে নেওয়ার পর তসলিমা নিজের সোশ্যাল আইডিতে দাবি করেছেন, ফেসবুকে এখন ‘জিহাদী’রা কাজ করছে। তিনি নিজের ভেরিফায়েড আইডিতে লিখেছেন, ‘আবারও ফেসবুকের জারি করা সাতদিনের ব্যান কাটালাম। ফেসবুক জিহাদিদের পাল্লায় পড়েছে, এ আমি নিশ্চিত। জিহাদিদের বহু পুরোনো টার্গেট আমি। জিহাদি লিঙ্গপালেরা যখন রিপোর্ট করে, সদলবলে করে।’

 

তসলিমা আরও লিখেছেন, ‘ফেসবুকে যে জিহাদিরা কর্মরত, তারা তো উল্লসিত টার্গেট কতল করার সুযোগ পেয়ে। ফেসবুককে এই লিঙ্গপালেরা একদিন হয়তো জিহাদিস্থান বানিয়ে ছাড়বে। মানবকল্যাণের জন্য কথা বলার অনুমতি মেলে না, কিন্তু মানুষকে কুপিয়ে মারার অস্ত্রগুলো ধারালো করার অনুমতি ঠিকই মেলে।’

 

এর আগে ফেসবুক আইডি ব্যান হওয়ার পর টুইটারে তসলিমা লিখেছিলেন, ‘সত্যি বলার অপরাধে ফেসবুক আমাকে আবারও ৭ দিনের জন্য নিষিদ্ধ করেছে।’ পরে অপর একটি টুইটে বিস্তারিত ভাবে তিনি লেখেন, ‘ফেসবুক আমাকে নিষিদ্ধ করেছে এটা লেখার জন্য – ইসলামপন্থী উগ্রবাদীরা বাংলাদেশি হিন্দুদের ঘরবাড়ি ও মন্দির ধ্বংস করেছে এই বিশ্বাস করে যে হিন্দুরা হনুমানের পায়ের ওপর কোরআন রেখেছে। কিন্তু যখন জানা গেল ইকবাল হোসেন সেটা করেছেন, হিন্দুরা নয়, ইসলামপন্থীরা চুপ হয়ে গেছে। তারা ইকবালের বিরুদ্ধে কিছু বলেনি বা কিছু করেনি।’