আজ ৬ই আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২০শে জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

Untitled 1

ফাইজারের টিকা নেওয়ার পর চিকিৎসকের মৃত্যু!

প্রথমবার্তা প্রতিবেদকঃ যুক্তরাষ্ট্রের উদ্ভাবিত ফাইজার-বায়োএনটেকের করোনাভ্যাকসিন নেওয়ার ১৬ দিন পর মারা গেছেন এক চিকিৎসক। মস্তিষ্কের রক্তক্ষরণজনিত কারণে তার মৃত্যু হয়। গ্রেগরি মাইকেল নামে মার্কিন এ চিকিৎসক ফ্লোরিডার মায়ামিতে ধাত্রীবিদ্যাবিশারদ (গাইনোকলজিস্ট) হিসেবে কর্মরত ছিলেন।

গত বছর ১৮ ডিসেম্বর সুস্থ অবস্থায় ফাইজারের করোনাভাইরাসের টিকা গ্রহণ করেন গ্রেগরি। গত ৩ জানুয়ারি তার মৃত্যু হয়। ফ্লোরিডা ডিপার্টমেন্ট অব হেলথ এবং ফেডারেল সেন্টারস ফর ডিজিজ কন্ট্রোল এন্ড প্রিভেনশন (সিডিসি) এ ঘটনার তদন্ত করছে। গত বুধবার গ্রেগরির দেহ থেকে ময়নাতদন্তের সময় নমুনা সংগ্রহ করে সিডিসিতে পাঠানো হয়েছে। এদিকে ফাইজার-বায়োএনটেকের দাবি, টিকা নেওয়ার সঙ্গে গ্রেগরির মৃত্যুর কোনো সম্পর্ক আছে বলে তারা মনে করে না।

সম্প্রতি গ্রেগরির স্ত্রী হিদি নেকেলম্যান ফেসবুকে একটি পোস্টের মাধ্যমে এ তথ্য জানান। পরে মার্কিন সংবাদমাধ্যম নিউ ইয়র্ক টাইমস তাদের এক প্রতিবেদনে এ খবর প্রকাশ করে। খবরে বলা হয়, গ্রেগরির স্ত্রী হিদি দাবি করেন, তার স্বামীর মৃত্যু করোনাভাইরাসের টিকার শক্তিশালী প্রতিক্রিয়ার কারণে মস্তিষ্কের রক্তক্ষরণ হওয়ায় মারা গেছেন।

এদিকে ফাইজার নিউ ইয়র্ক টাইমসকে বলেছে, তারা ক্লিনিক্যাল পরীক্ষার সময় বা টিকা বাজারজাত করার পর এমন নিরাপত্তাজনিত কোনো সংকেত পায়নি। গ্রেগরির মৃত্যুকে তার শোকাহত পরিবারের প্রতি সহমর্মিতা প্রকাশ করেছে প্রতিষ্ঠানটি।

ফেসবুকে হিদি নেকলম্যান লেখেন, ‘টিকা নেওয়ার সময় আমার স্বামী একেবারে সুস্থ মানুষ ছিলেন। পরে তিনি ইডিওপ্যাথিক থ্রোমবোসাইটোপেনিক পারপুরা (আইটিপি) জনিত স্ট্রোকে আক্রান্ত হন। রক্তে প্লেটলেটসের ঘাটতির কারণে বিশৃংখলা দেখা দেয়। এ অবস্থাকে আইটিপি হিসেবে চিহ্নিত করা হয়। আমার স্বামীর শরীরে রোগ প্রতিরোধ বিষয়ক বিশৃঙ্খলা ছিল না। এ ছাড়া এমন কোনো লক্ষণ বা অবস্থা তার শরীরে ছিল না, যার কারণে তিনি আইটিপিতে আক্রান্ত হতে পারেন। আমার স্বামীর মৃত্যুর সঙ্গে শতভাগ সম্পর্ক আছে এই টিকার। এর অন্য কোনো ব্যাখ্যা হতে পারে না।’

নিউ ইয়র্ক টাইমস জানায়, বিষয়টি সামনে আসার পরপরই ফাইজার সক্রিয়ভাবে তদন্ত শুরু করেছে। টিকা নেওয়ার সঙ্গে ওই চিকিৎসকের মৃত্যু যোগসাজস আছে, তারা এটি মানতে নারাজ।

ফাইজারের দাবি, কয়েক লাখ মানুষকে এখন পর্যন্ত তাদের টিকা দেওয়া হয়েছে। টিকা প্রয়োগের পর ব্যক্তিবিশেষের ক্ষেত্রে কোনো বিরূপ প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয় কিনা তা ঘনিষ্ঠভাবে তারা পর্যবেক্ষণ করছে।