আজ ৩রা জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৭ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

ব্যস্ত

ব্যস্ত যাত্রীরা ‘খুনের’ ভিডিও ধারণে…

প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক: ভয়াবহ দৃশ্য! ব্যস্ত রাস্তায়, দিনের আলোতে গাড়ি থেকে টেনে হিঁচড়ে নামানো হচ্ছে আইনজীবী স্বামী-স্ত্রীকে। এরপর তাদের একের পর ছুরিকাঘাত করা হচ্ছে! আঘাতে মাটিতে লুটিয়ে পড়েছেন স্বামী। বয়ে যাচ্ছে রক্ত। অন্যদিকে গাড়ির দরজায় ঝুলছে স্ত্রীর দেহ! এমন ছবি ধরা পড়েছে ভারতের তেলেঙ্গনার মন্থনি এবং পেড্ডাপল্লী শহরের মাঝে এক ব্যস্ত রাস্তায়।

 

স্বামী গট্টু ভমন রাও, স্ত্রী পিভি নগামণি। দু’জনেই তেলেঙ্গনা হাইকোর্টের আইনজীবী। তাদের ওপর এভাবে হামলায় কোনও পথচারী প্রতিবাদ করলেন না, কারণ সকলেই ব্যস্ত থাকলেন ভিডিও রেকর্ড করতে। মুহূর্তেই ভয়াবহ ভিডিওটি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে যায়।ভিডিওতে দেখা গেছে, হামলাকারী বারবার বুকে ছুরিকাঘাত করছে গট্টু ভমনের।

 

গাড়ির ঠিক পাশে একটি বাস কিছুক্ষণের জন্য গতি নিয়ন্ত্রণ করে, হর্ন বাজাতে থাকে। এছাড়াও পাশে থাকা এক যুবক বাইক থামিয়ে দেখতে থাকেন গোটা ঘটনা। এরপর সকলেই সরে যান এলাকা থেকে। অন্য একটি ভিডিওতে দেখা গেছে, মারাত্মকভাবে জখম হন স্ত্রী নগামণি, গাড়ির দুই সিটের মাঝে আটকে রয়েছেন।

 

আরও একটি ভিডিও সামনে এসেছে, যাতে দেখা গেছে, ভামন রাও রাস্তায় পড়ে, রক্ত চারিদিকে গড়িয়ে যাচ্ছে। এর মধ্যেও তিনি কথা বলার চেষ্টা করছেন। নিজের পরিচয় জানাচ্ছেন এবং একই সঙ্গে যে তার বুকে ছুরিকাঘাত করেেছেন তার নামও উল্লেখ করছেন। হামলাকারীর নাম কুন্তি শ্রীনিবাস, তেলেঙ্গনা রাষ্ট্র সমিতির সদস্য সে।

 

এমনই জানা গেছে।আইনজীবী দম্পতিকে হাসপাতালে নেয়া হলে তাদের মৃত্যু ঘোষণা করা হয়। এর আগেই দাবি করা হয় যে দম্পতির প্রাণের আশঙ্কা রয়েছে। তারপরই এই বীভৎস ঘটনা। ইতিমধ্যেই ১০ জনকে আটক করা হয়েছে।

 

এদের থেকে মূল অভিযুক্তের সম্পর্কে জানার চেষ্টা করছে পুলিশ। প্রকাশ্যে এমন হামলার ঘটনায় রাজ্যের আইনজীবীদের মধ্যে অসন্তোষ তৈরি হয়েছে এবং একই সঙ্গে ঘটনার কড়া নিন্দা করা হয়েছে বার কাউন্সিলের পক্ষ থেকে। দ্রুত অভিযুক্তের শাস্তি দাবি করা হয়েছে।