আজ ৩০শে চৈত্র, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১৩ই এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

124840austin.JPG

ভারতের প্রধান প্রতিরক্ষা অংশীদার হিসেবে মাঠে নামতে চাই: অস্টিন

প্রথমবার্তা প্রতিবেদকঃ যুক্তরাষ্ট্রের জন্য চীন যে ধরনের হুমকি হয়ে দাঁড়িয়েছে তা পুনর্বিবেচনা করতে গিয়ে মার্কিন প্রতিরক্ষামন্ত্রী হিসেবে মনোনীত লয়েড অস্টিন বলেছেন, তিনি ভারতের প্রধান প্রতিরক্ষা অংশীদারের মর্যাদায় কার্যক্রম শুরু করবেন। সেই সঙ্গে মার্কিন-ভারত বিদ্যমান প্রতিরক্ষা সহযোগিতা আরো শক্তিশালী করে গড়ে তোলার কথাও বলেছেন তিনি।

 

তিনি আরো বলেছেন, যদি তা নিশ্চিত হয়ে যায়, তাহলে আমার প্রধান লক্ষ্য হবে- ভারতের সাথে আমাদের প্রতিরক্ষা সম্পর্ক আরো দৃঢ় করা। আমি ভারতের ‘মেজর ডিফেন্স পার্টনার’ মর্যাদাকে আরও কার্যকর করব। এছাড়া আমি ভারতকে প্রধান প্রতিরক্ষা অংশীদারের মর্যাদা দিয়ে কার্যক্রম শুরু করবো।

 

তিনি আরো বলেন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং ভারতীয় সামরিক বাহিনীর অংশীদারিত্বের স্বার্থ রক্ষার বিষয়টি নিশ্চিত করার জন্য বিদ্যমান শক্তিশালী প্রতিরক্ষা সহযোগিতা অব্যাহত রাখা হবে। মার্কিন সিনেট সশস্ত্র পরিষেবা কমিটির সদস্যদের সামনে এ কথা বলেন অস্টিন।

 

তিনি আরো বলেছেন, আমি কোয়াড (এশিয়া ন্যাটো; যুক্তরাষ্ট্র, জাপান, অস্ট্রেলিয়া ও ভারত হলো এর সদস্য দেশ) সুরক্ষা সংলাপ এবং অন্যান্য আঞ্চলিক বহুপাক্ষিক কাজের মাধ্যমে আমাদের প্রতিরক্ষা সহযোগিতা আরো গভীর ও প্রসারিত করার চেষ্টা করব।

 

রাশিয়া ও চীন উভয়কেই যুক্তরাষ্ট্রের জন্য হুমকি হিসেবে বিবেচনা করলেও লয়েড অস্টিন অবশ্য চীনকে বেশি গুরুত্ব দিচ্ছেন। তিনি এ ব্যাপারে বলেছেন, সেনাবাহিনী আধুনিকায়নের ব্যাপারে চীন এগিয়ে যাওয়ায় দেশটিকে প্রাধান্য দেওয়া হচ্ছে।

 

চীনের ব্যাপারে তিনি আরো বলেছেন, বেইজিং এটা পরিষ্কার করে দিয়েছে যে, তাদের পিপলস লিবারেশন আর্মি (পিএলএ) বৈশ্বিকভাবে সামরিক নেতা হয়ে উঠতে চায়। আর এতে করে তারা চীনের ক্রমবর্ধমান বিদেশি স্বার্থ সুরক্ষিত করতে এবং বিদেশে চীনাদের লক্ষ্যগুলো এগিয়ে নিতে সক্ষম হতে চায়।

 

তিনি আরো বলেন, আমি বিবেচনা করে দেখেছি- চীনের দ্রুত বিকাশ ও তাদের দৃষ্টিভঙ্গী যুক্তরাষ্ট্র এবং আমাদের সহযোগীদের জন্য দীর্ঘমেয়াদে বড় ধরনের হুমকি। গত দুই দশকেরও বেশি সময় ধরে চীন তাদের পিপলস লিবারেশন আর্মি এবং অন্যান্য বাহিনীর উন্নয়ন করেছে। যুদ্ধক্ষেত্রে যে কোনো পরিসরে সামরিক অভিযানের জন্য তারা প্রস্তুতি নিয়েছে।

 

যুক্তরাষ্ট্রের ২০১৮ সালের জাতীয় প্রতিরক্ষা কৌশল (এনডিএস) এ তিনি যে ধরনের পরিবর্তন নিয়ে আসবেন, সে ব্যাপারে লয়েড অস্টিন বলেন, বৈশ্বিক নিরাপত্তা পরিবেশের পরিবর্তনের বিষয়টি বিবেচনা করে তিনি ব্যাপক কৌশলগত সিদ্ধান্ত গ্রহণ করবেন।

 

তিনি বলেন, চীনের সামরিক আধুনিকায়নের গতি, ইন্দো-প্যাসিফিক এলাকায় তাদের ক্রমবর্ধমান আগ্রাসী পদক্ষেপ এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মূল ভূমিতে বেইজিংয়ের হুমকির ক্ষমতার বিষয়টি উদ্বেগের। আর এটি ক্রমাগত পরীক্ষা করা দরকার বলেও মনে করেন তিনি।

সূত্র: ডেইলি শিখ