আজ ১৬ই ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১লা মার্চ, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

ভয়

ভয় দূর করতে হবে, সবাই যেন টিকা নেয়

প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক: করোনা ভ্যাকসিন নিয়ে মানুষের মধ্যে যে ভয় আছে, তা দূর করতে যুবলীগের নেতাকর্মীদের কাজ করার আহ্বান জানিয়েছেন আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। যুবলীগের ৪৮তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে গতকাল দুপুরে এক আলোচনাসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রী এ আহ্বান জানান। রাজধানীর কৃষিবিদ মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত আলোচনাসভায় গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে যুক্ত হন শেখ হাসিনা।

 

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘টিকা নিয়ে অনেকের মধ্যে শুরুতে কিছুটা দ্বিধা থাকলেও এখন তা কেটে গেছে। এখানে যুবলীগের একটা দায়িত্ব আছে। বিশেষ করে আমরা বলেছি যে ৪০ বছরের ওপরে যারা, আর বিশেষ করে শিক্ষক থেকে শুরু করে অন্যান্য যাদের সব সময় মানুষের পাশে কাজ করতে হয়, তাদের আগে দিতে হবে। মানুষের মধ্যে এই ভয়টা দূর করতে হবে। সবাই যেন ভ্যাকসিনটা নেয়। সেই ব্যবস্থা করে মানুষের পাশে দাঁড়াতে হবে।’

 

শেখ হাসিনা বলেন, ‘টিকা নেওয়ার পরও কিন্তু স্বাস্থ্য সুরক্ষার নিয়মগুলো মেনে চলতে হবে। মাস্ক ব্যবহার করতে হবে, হাত পরিষ্কার করতে হবে এবং সব সময় পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন থাকতে হবে।…এটা সবাইকেই নজরে রাখতে হবে এবং এটা যুবলীগ করবে, সেটা আমি চাই।’

 

অনুষ্ঠানে যুবলীগের নতুন নেতৃত্বকে অভিনন্দন জানিয়ে আওয়ামী লীগ সভাপতি বলেন, ‘জাতির পিতার নেতৃত্বে সব সময় সব আন্দোলনে তরুণরা অগ্রণী ভূমিকা পালন করেছে। কাজেই তাদের হাত ধরেই বাংলাদেশ এগিয়ে যাবে। জাতির পিতার স্বপ্নের সোনার বাংলা ইনশাআল্লাহ আমরা গড়ে তুলব। আমাদের তো বয়স হয়ে গেছে। কিন্তু আজকের তরুণরাই তো আগামী প্রজন্ম এবং প্রজন্মের পর প্রজন্ম এই দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাবে।’

 

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ‘এই করোনাভাইরাসের সময়ে আমরা এরই মধ্যে টিকা দেওয়া শুরু করেছি…অনেক কথা শুনতে হয়। এসব কথায় কান দিলে চলে না। অনেকেই তো বলেছে, বাংলাদেশে ভ্যাকসিন আসবে না। অনেক উন্নত দেশও কিন্তু আনতে পারেনি। আমি কিন্তু কোনো দিকে তাকাইনি। আমার কাছে মানুষ সব থেকে বড়, মানুষের জীবন বড়। যারা এর সমালোচনা করছে, তাদের কথায় গুরুত্ব দেওয়ার কিছু নেই।’

 

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমি যখন প্রথম ভ্যাকসিনের জন্য টাকা দিই, এক হাজার কোটি টাকা আলাদা রেখে…আমি সঙ্গে সঙ্গে অ্যাডভান্স করে দিয়েছিলাম যে যখনই ভ্যাকসিন তৈরি হবে এবং বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা যখনই অনুমোদন দেবে, সবার আগে যেন বাংলাদেশ পায়। এবং সেটাই আজকে প্রমাণিত সত্য।’

 

ভ্যাকসিন উপহার দেওয়ায় ভারত সরকারকে ধন্যবাদ জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, ‘এখন আরো অনেকেই দিতে চাচ্ছেন। কিন্তু আমাদের যেটা প্রয়োজন, আমরা কিন্তু নিয়ে এসেছি।’

 

আলোচনাসভায় বক্তব্য দেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য জাহাঙ্গীর কবির নানক, সাংগঠনিক সম্পাদক মির্জা আজম, যুবলীগের সাবেক ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান ও শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ হুমায়ূন, যুবলীগের চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশ, সাধারণ সম্পাদক মঈনুল হোসেন খান নিখিল প্রমুখ।

 

ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের সহযোগী সংগঠন যুবলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী আজ। বাংলাদেশ স্বাধীনতা লাভের পর ১৯৭২ সালের ১১ নভেম্বর রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে এক যুব কনভেনশনের মাধ্যমে যুবলীগ প্রতিষ্ঠা হয়। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাগ্নে শেখ ফজলুল হক মনি সংগঠনটির প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান।