আজ ৩০শে চৈত্র, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১৩ই এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

akisf 2

মডেল কেরালা এখন ভারতে দৈনিক করোনা সংক্রমণের শীর্ষে

প্রথমবার্তা,প্রতিবেদক :ভারতে মহামারি করোনার শনাক্ত সংক্রমণ ৭০ লাখ ছাড়িয়েছে রবিবার। এ দিন দৈনিক সংক্রমণের নিরিখে দীর্ঘদিন ধরে শীর্ষে থাকা মহারাষ্ট্রকে টপকে শীর্ষে উঠে এসেছে কেরালা।

 

অথচ ভাইরাসটির সংক্রমণ রোধে দক্ষিণ ভারতের এই রাজ্যটির নেয়া নানা পদক্ষেপ বিশ্বব্যাপী প্রশংসিত হয়েছিল ‘কেরালা মডেল’ নামে।নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ অমর্ত্য সেন, মার্কিন বুদ্ধিজীবী, লেখক-চিন্তাবিদ নোয়াম চমস্কিসহ অসংখ্য প্রখ্যাত ব্যক্তি কেরালার কোভিড-১৯ প্রশমন প্রচেষ্টার ভূয়সী প্রশংসা করেছিলেন। করোনা মোকাবিলায় ভারতের বামশাসিত এই রাজ্যের গৃহীত পদক্ষেপ আলোচিত হয়েছে বিশ্বজুড়েও।

 

কিন্তু এখন দেখা যাচ্ছে ভিন্ন চিত্র।ভারতের ছোট্ট রাজ্য কেরালার জনসংখ্যা ৩ কোটি ৩৪ লাখ। গত মার্চে গোটা ভারত যখন লকডাউন করা হয় তখনও দেশটির ২৮টি রাজ্যের মধ্যে সেখানে কোভিড-১৯ রোগী ছিল সবচেয়ে বেশি। কিন্তু ভারতে সবার আগে সংক্রমিত রোগীর সংখ্যা নিয়ন্ত্রণে নিয়ে আসায় সফল এই রাজ্যটিতে ঊর্ধ্বমুখী সংক্রমণ শুরু হয়েছে।

 

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের প্রকাশিত বুলেটিন অনুযায়ী, নতুন করে প্রায় ৭০ হাজারসহ দেশটিতে করোনায় সংক্রমিত মানুষের সংখ্যা ৭০ লাখ ৫৩ হাজার ৮০৬ জন; সুস্থ ৬০ লাখের বেশি। নতুন করে যেসব রোগী শনাক্ত হয়েছে এর মধ্যে শীর্ষে রয়েছে দক্ষিণের রাজ্য কেরালা। এতদিন ছিল পশ্চিমের মহারাষ্ট্র।বৃহস্পতিবার চতুর্থ রাজ্য হিসেবে কেরালায় একদিনে ১০ হাজারের বেশি কোভিড-১৯ রোগী শনাক্ত হয়।

 

ভারতের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের বুলেটিন অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় কেরালায় ৬৬ হাজার ২২৮ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ১১ হাজার ৭৫৫ জন শনাক্ত হয়েছেন। শনাক্তের হার রাজ্যটিতে সর্বোচ্চ; ১৭ দশমিক ৭ শতাংশ।অপর দিকে এ দিন মহারাষ্ট্রে শনাক্ত হয়েছে ১১ হাজার ৪১৬ জন কোভিড-১৯ রোগী। তবে মোট আক্রান্তের হিসাবে ভারতে এখনও শীর্ষে মহারাষ্ট্র।

 

রাজ্যটিতে মোট সংক্রমণ ১৫ লাখ ১৭ হাজার ৪৩৪। মৃত্যু ৪০ হাজার ৪০ জনের। কেরালা এবং মহারাষ্ট্র ছাড়াও কর্ণাটক, অন্ধ্রপ্রদেশ ও তামিলনাড়ুতে আক্রান্ত সবচেয়ে বেশি।ভারতের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, এ দিন ওই পাঁচ রাজ্যে দেশের ৬১ শতাংশ কোভিড-১৯ রোগী শনাক্ত হয়েছে। পাশাপাশি, সুস্থ হয়ে ওঠা রোগীদের অর্ধেকের বেশিও (৫৪.৩ শতাংশ) উল্লিখিত ওই পাঁচ রাজ্যেরই।

 

করোনার সংক্রমণে ভারতে রাজ্যের হিসেবে কেরালার অবস্থান অষ্টম। তবে সক্রিয় কোভিড-১৯ রোগীর হিসাবে মহারাষ্ট্র এবং কর্ণাটকের পর তৃতীয় স্থানে রয়েছে কেরালা। এ পর্যন্ত রাজ্যটিতে শনাক্ত রোগীর সংখ্যা দুই লাখ ৮০ হাজার প্রায়। সুস্থ ১ লাখ ৮২ হাজারের বেশি। গতদিন নতুন করে ২৩ জনসহ মোট মৃত্যু ৯৭৮।করোনার সংক্রমণ বৃদ্ধির মাঝামাঝি রয়েছে কেরালা।

 

রাজ্য সরকার সতর্ক করে বলছে, দৈনিক শনাক্ত সংক্রমণের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে। রাজ্যের স্বাস্থ্যমন্ত্রী কে কে শাইললাজা ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসকে বলেছেন, দৈনিক এই সংক্রমণ হয়তো ২০ হাজারে গিয়ে ঠেকতে পারে, তবে আমরা ১৫ হাজারে রাখার চেষ্টা করছি।সরকারি হিসাবে, গত প্রায় তিন সপ্তাহ ধরে কেরালায় দ্রুতগতিতে করোনার সংক্রমণ বাড়তে দেখা যাচ্ছে।

 

অথচ একই সময়ে ভারতে করোনার সংক্রমণ কমেছে। দেশটিতে নতুন করে দৈনিক করোনার সংক্রমণের হার যেখানে এক শতাংশ সেখানে কেরালায় সংক্রমণ বৃদ্ধির এই হার ৩ দশমিক ৫।