আজ ১২ই ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২৫শে ফেব্রুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

azam whtasapp

মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশি প্রবাসীর নকল ওষুধের কারখানা

প্রথমবার্তা প্রতিবেদকঃ মালয়েশিয়ায় প্রায় দুই দশক ধরে স্বদেশিদের কাছে নকল ওষুধ বিক্রি করছিলেন বাংলাদেশি এক নাগরিক। আজম নামের ওই ব্যক্তি সম্প্রতি গ্রেপ্তার হয়েছেন।

 

মালয়েশিয়ায় বসবাসরত বাংলাদেশিরা দেশ রূপান্তরকে আজমের গ্রেপ্তার হওয়ার ভিডিও এবং কারখানার ছবি পাঠিয়েছেন। তারা জানিয়েছেন, বাংলাদেশের নাপা ব্র্যান্ডনেমের মতো অনেক ওষুধের পাশাপাশি ফেয়ার অ্যান্ড লাভলিও নকল করে ফেলেন আজম। মালয়েশিয়ার কিছু জনপ্রিয় ওষুধও নিজের কারখানায় তৈরি করছিলেন তিনি।

 

আজমের বাড়ি শরিয়তপুরের জাজিরায়।

এক প্রবাসী নিজের নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেছেন, ‘আমরা কয়েক জন অনেক আগে থেকে তাকে চিনতাম। এখানে প্রভাবশালী তিনি। তাই কিছু বলতে পারতাম না। যেসব ওষুধ ‍তিনি বিক্রি করছিলেন, সেগুলো খেয়ে মানুষ মারাও যেতে পারে। সব প্রবাসীর বিষয়টি জানা দরকার।’

 

আজম যে কোম্পানির (জাজিরা এন্টারপ্রাইজ) অধীনে ভুয়া ওষুধ বিক্রি করছিলেন, তার একটি নথি ঘেঁটে মালিক হিসেবে একজন নারীর নাম দেখা গেছে। এই নারী মূলত আজমের মালয়েশিয়ান স্ত্রী। আগে কোম্পানিটি নিজের নামে থাকলেও পরে মালিকানা স্ত্রী হালিমাহ বিনতি ইসমাইলের নামে হস্তান্তর করেন।

 

আজম মালয়েশিয়ায় প্রভাব বিস্তার করতে স্থানীয় শিল্পপতিদের ঐতিহ্যবাহী উপাধি ‘দাতো’ ব্যবহার করছিলেন। এই উপাধিও ভুয়া। কোনো স্টেট গভর্নর কিংবা মালয়েশিয়ার সুলতান তাকে উপাধিটি দেননি।

 

আজমের টার্গেট ছিলেন প্রবাসী রোগীরা। বাংলাদেশ এবং ভারতের নাগরিকদের কাছেই এগুলো বেশি বিক্রি করতেন।চলতি সপ্তাহে বেশ কয়েক জায়গায় অভিযান চালিয়ে আজমের সঙ্গে জড়িত সন্দেহে আরও পাঁচ প্রবাসীকে গ্রেপ্তার করেছে মালয়েশিয়ান পুলিশ।