আজ ৩১শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৪ই জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

023709Mark kalerkantho pic

শিশু তহবিল কেলেঙ্কারিতে পদত্যাগ ডাচ সরকারের

প্রথমবার্তা প্রতিবেদকঃ নেদারল্যান্ডসে শিশু কল্যাণ তহবিলের অর্থ নেওয়ার ক্ষেত্রে হাজার হাজার পরিবারের বিরুদ্ধে প্রতারণার যে ভুল অভিযোগ আনা হয়েছিল, সেই কেলেঙ্কারির দায় স্বীকার করে শাসনভার ছেড়ে দিয়েছে দেশটির সরকার। গতকাল শুক্রবার প্রধানমন্ত্রী মার্ক রুত্তে ও তাঁর সরকার পদত্যাগ করে।

হেগ শহরে গতকাল মন্ত্রিসভার জরুরি বৈঠক ডাকেন প্রধানমন্ত্রী রুত্তে। সেখানে সর্বসম্মত সিদ্ধান্ত হওয়ার পর তিনি আনুষ্ঠানিকভাবে নেদারল্যান্ডসের রাজা উইলেম-অ্যালেক্সান্দারের কাছে তাঁর সরকারের পদত্যাগপত্র জমা দেন।

নেদারল্যান্ডসের কর কর্মকর্তারা ২০১২ থেকে ২০১৯ সালের মধ্যে প্রায় ২৬ হাজার পরিবারের বিরুদ্ধে শিশু কল্যাণ তহবিলের সহায়তা নেওয়ার ক্ষেত্রে প্রতারণার অভিযোগ আনেন। ওই অভিযোগের ভিত্তিতে সেসব পরিবারকে সহায়তার অর্থ ফেরত দিতে বাধ্য করা হয়। ফলে বহু পরিবার নিদারুণ আর্থিক সংকটে পড়ে যায়। বহু পরিবারকে তাদের ঘর হারাতে হয়, এমনকি বিবাহবিচ্ছেদের মতো ঘটনাও ঘটে। পরে দেখা যায়, ফরম পূরণে ছোটখাটো ভুলের জেরেও অনেক পরিবারের বিরুদ্ধে প্রতারণার অভিযোগ আনা হয়েছে। ভুক্তভোগী পরিবারগুলোর মধ্যে অভিবাসীও রয়েছে।

নেদারল্যান্ডসের কর কর্মকর্তারা গত বছর প্রথমবারের মতো স্বীকার করেন, স্রেফ দ্বৈত নাগরিকত্ব থাকার কারণেই বহু পরিবারের বিরুদ্ধে বাড়তি তদন্ত করেছেন তাঁরা।

অনর্থক তদন্ত আর এর ভিত্তিতে পরিবারগুলোকে অর্থ ফেরত দিতে বাধ্য করার ‘অপরাধ’ স্বীকার করে পদত্যাগ করে প্রধানমন্ত্রী রুত্তে ও তাঁর সরকার। পদত্যাগের সিদ্ধান্ত জানিয়ে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, ‘নিরপরাধ মানুষকে অপরাধী বানানো হয়েছে, তাদের জীবন ধ্বংস হয়ে গেছে। যা কিছু ঘটেছে তার দায় মন্ত্রিসভার ওপরও বর্তায়।’

এমন একসময় নেদারল্যান্ডসের সরকার পদত্যাগের সিদ্ধান্ত নিল, যখন করোনাভাইরাসের মহামারির মধ্যে এমনিতেই কঠিন সময় পার করতে হচ্ছে। রুত্তে অবশ্য বলেছেন, আগামী ১৭ মার্চ পার্লামেন্ট নির্বাচনের মাধ্যমে নতুন সরকার না আসা পর্যন্ত তাঁর মন্ত্রিসভা অন্তর্বর্তীকালীন সরকার হিসেবে দায়িত্ব চালিয়ে যাবে। সূত্র : এএফপি।