আজ ৯ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৪শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

সুষ্ঠু নির্বাচন নিয়ে শঙ্কায় সাউথখালীর ৮ সদস্য প্রার্থী
সুষ্ঠু নির্বাচন নিয়ে শঙ্কায় সাউথখালীর ৮ সদস্য প্রার্থী

সুষ্ঠু নির্বাচন নিয়ে শঙ্কায় সাউথখালীর ৮ সদস্য প্রার্থী

প্রথমবার্তা প্রতিবেদকঃ সুষ্ঠু নির্বাচন অনুষ্ঠান নিয়ে শঙ্কায় পড়েছেন বাগেরহাটের শরণখোলা উপজেলার সাউথখালী ইউনিয়নের আট ইউপি সদস্য পদপ্রার্থী। প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী ও তাদের বেপরোয়া কর্মিবাহিনীর বিরুদ্ধে নির্বাচনের শান্তিপূর্ণ পরিবেশ বিঘ্নিত করার অপচেষ্টা, নিরীহ ভোটারদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে ভোটকেন্দ্রে না যাওয়ার হুমকি ও ভোটের দিন কেন্দ্র দখলের অভিযোগ করছেন তারা।

 

এসব অভিযোগের প্রতিকার চেয়ে এবং সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচনের দাবিতে তারা বাগেরহাটের জেলা প্রশাসকসহ প্রশাসন ও আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত আবেদন জানিয়েছেন। অভিযোগকারীরা হলেন, ১ নম্বর সোনাতলা ওয়ার্ডের প্রার্থী শফিকুল ইসলাম ডালিম, ২ নম্বর বকুলতলা ওয়ার্ডের প্রার্থী দেলোয়ার হোসেন খলিল, ৩ নম্বর উত্তর-দক্ষিণ তাফালবাড়ী ওয়ার্ডের প্রার্থী জামাল হোসেন জমাদ্দার, ৪ নম্বর রায়েন্দা ওয়ার্ডের প্রার্থী শামসুল আলম রিপন, ৫ নম্বর উত্তর সাউথখালী ওয়ার্ডের আল আমিন খান, ৭ নম্বর বগী ওয়ার্ডের আবু হানিফ মুন্সী, ৮ নম্বর চালিতাবুনিয়া ওয়ার্ডের প্রার্থী জাহাঙ্গীর হোসেন খলিফা এবং ৯ নম্বর খুড়িয়াখালী ওয়ার্ডের প্রার্থী বাচ্চু মুন্সী।

 

এই আট ইউপি সদস্য প্রার্থী অভিযোগ করে বলেন, আমরা সবাই আওয়ামী লীগের নিবেদিত কর্মী। এর মধ্যে অনেকেই ওয়ার্ড ও ইউনিয়ন পর্যায় দলের বিভিন্ন পদে রয়েছেন। প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীদের মধ্যে অনেকেই জামায়াত-বিএনপির সক্রিয় কর্মী। তরপরও আমরা নিজ দলের নেতাদের কাছ থেকে কোনোপ্রকার সহযোগিতা তো দূরের কথা উল্টো আমরাই হয়রানির শিকার হচ্ছি। প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী ও তাদের বাহিনীর হাতে এর মধ্যে আমার একাধিক হামলা-মামলার শিকার হয়েছি। তারা অনেকেই বিরোধী দলের প্রার্থীদের পক্ষে প্রকাশ্যে প্রচার-প্রচারণায় নেমেছেন।

 

তারা আরো অভিযোগ করে বলেন, সাউথখালী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান হাসানুজ্জামান পারভেজ তিনি নিজেই প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীদের পক্ষে সরাসরি প্রচার-প্রচারণায় অংশগ্রহণ করছেন। এমনকি, তিনি তার সমর্থিত প্রার্থীদের যেকোনো মূল্যে বিজয়ী করে আনবেন বলেও ঘোষণা দেন। তার এমন প্রকাশ্য ঘোষণায় আমরা ভীতির মধ্যে আছি। এতে আমাদের কর্মী-সমর্থক ও সাধারণ ভোটারদের মধ্যে আতঙ্ক দেখা দিয়েছে। আমরা নির্বাচনের শান্তিপূর্ণ পরিবেশ চাই।

 

ইউনয়িন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও ভাইস চেয়ারম্যান হাসানুজ্জামান বলেন, আমার বিরুদ্ধে যারা অভিযোগ করেছেন তারা জনশূন্য প্রার্থী। তা ছাড়া, কোনো প্রার্থীর পক্ষে প্রচার-প্রচারণায় অংশগ্রহণের অভিযোগ সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন। যারা এসব অপপ্রচার করছেন তারা এর একটিও প্রমাণ করাতে পারবেন না। আমি সাউথখাালী ইউনিয়নে একটি শান্তিপূর্ণ নির্বাচন অনুষ্ঠানের জন্য প্রশাসনের কাছে দাবি জানাই।

 

এ ব্যাপারে সাউথখালী ইউনিয়নের দায়িত্বপ্রাপ্ত রিটার্নিং অফিসার ও উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মো. ওয়াসিম উদ্দিন বলেন, ইউপি সদস্য পদপ্রার্থীদের অভিযোগের বিষয়ে পর্যবেক্ষণ করে সত্যতা পেলে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।