আজ ৩০শে চৈত্র, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১৩ই এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

Flag1

সেনাবাহিনীর ৩টি ব্রিগেড ও ৫টি ইউনিটের পতাকা উত্তোলন করলেন প্রধানমন্ত্রী

প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক:বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ৭ পদাতিক ডিভিশনের তত্ত্বাবধানে আজ (২৮ অক্টোবর) ৩টি ব্রিগেড ও ৫টি ইউনিটের পতাকা উত্তোলন প্যারেড অনুষ্ঠিত হয়েছে।

 

শেখ হাসিনা সেনানিবাসে যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ পূর্বক সদর দপ্তর ৭ স্বতন্ত্র এডিএ ব্রিগেড, প্যারা কমান্ডো ব্রিগেড, সদর দপ্তর ২৮ পদাতিক ব্রিগেড এবং ৪৯ ফিল্ড রেজিমেন্ট আর্টিলারি, ১২ সিগন্যাল ব্যাটালিয়ন, ৬৬ ইস্ট বেংগল, ৪৩ বীর এবং ৪০ এসটি ব্যাটালিয়নের পতাকা উত্তোলন প্যারেড অনুষ্ঠিত হয়।

 

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভিডিও টেলি কনফারেন্সের মাধ্যমে প্রধান অতিথি হিসেবে এতে উপস্থিত ছিলেন। সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল আজিজ আহমে প্রধানমন্ত্রীর পক্ষে ৩টি ব্রিগেড ও ৫টি ইউনিটের পতাকা উত্তোলন করেন।

 

পতাকা উত্তোলন প্যারেড শেষে প্রধানমন্ত্রী তাঁর মূল্যবান বক্তব্য প্রদান করেন। এ সময় তিনি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের হাতে গড়া এ সেনাবাহিনীকে একটি প্রশিক্ষিত, সুশৃংখল এবং আধুনিক সাজসজ্জায় সজ্জিত বাহিনী হিসেবে গড়ে তোলার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন। একই সাথে তিনি এই দিনটিকে একটি অত্যন্ত আনন্দের দিন, পরিপূর্ণতা অর্জন এবং একটি মাইলফলক পেরোনোর দিন হিসেবে অভিহিত করেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকীর এই দিনে ৭ পদাতিক ডিভিশনের অধীনে বিভিন্ন ব্রিগেড/ইউনিটের আনুষ্ঠানিক পতাকা উত্তোলিত হলো।

 

নবগঠিত এসব ব্রিগেড সদর ও ইউনিটসমূহ দক্ষিণাঞ্চলের নিরাপত্তা নিশ্চিতের পাশাপাশি সাধারণ জনগণের স্বপ্নপূরণে বলিষ্ঠ ভূমিকা রাখবে।’তিনি দেশ গঠন ও বিভিন্ন দুর্যোগ মোকাবেলায় এবং আন্তর্জাতিক পরিমন্ডলে সেনাবাহিনীর আত্মত্যাগ ও অসামান্য অবদানের কথা স্মরণ করেন।

 

এছাড়াও প্রধানমন্ত্রী সদর দপ্তর ৭ স্বতন্ত্র এডিএ ব্রিগেড, প্যারা কমান্ডো ব্রিগেড, সদর দপ্তর ২৮ পদাতিক ব্রিগেড এবং ৪৯ ফিল্ড রেজিমেন্ট আর্টিলারি, ১২ সিগন্যাল ব্যাটালিয়ন, ৬৬ ইস্ট বেংগল, ৪৩ বীর এবং ৪০ এসটি ব্যাটালিয়ন গৌরবময় ঐতিহ্যের ধারা অব্যাহত রেখে ক্রমান্বয়ে উন্নতির দিকে এগিয়ে যাবে এবং সেনাবাহিনীর চৌকস ইউনিট হিসেবে নিজেদের অবস্থান সুসংহত ও সুদৃঢ় করবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

 

অনুষ্ঠান শেষে সেনাবাহিনী প্রধান শেখ হাসিনা সেনানিবাসে নবনির্মিত বিভিন্ন স্থাপনা উদ্বোধন করেন। অনুষ্ঠানে ঊর্ধ্বতন সেনাকর্মকর্তাগণ, অসামরিক কর্মকর্তাবৃন্দ ও বিভিন্ন পদবীর সেনাসদস্যগণ উপস্থিত ছিলেন।