আজ ৫ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৯শে মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

হেফাজতের আমির হয়ে যা বললেন বাবুনগরী

প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক:নিজে থেকে নয়, বরং সংগঠনের সিনিয়ররাই দায়িত্ব দিয়েছেন বলে জানিয়েছেন হেফাজতে ইসলামের সদ্য দায়িত্বপ্রাপ্ত আমির জুনাইদ বাবুনগরী।

হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের নতুন আমির নির্বাচিত হয়েছেন জুনায়েদ বাবুনগরী। মহাসচিব নির্বাচিত হয়েছেন মাওলানা নূর হোসাইন কাসেমী।

রবিবার (১৫ নভেম্বর) চট্টগ্রামের হাটহাজারী মাদ্রারাসায় সংগঠনটির কেন্দ্রীয় সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সম্মেলনে সারাদেশের কাউন্সিলরদের ভোটে আমির ও মহাসচিব নির্বাচিসহ ১৫১ সদস্যর কমিটি ঘোষণা করেছে সংগঠনটি।

সদ্য দায়িত্বপ্রাপ্ত বাবুনগরী বলেন, আমি আমির হতে চাইনি। সংগঠনে যারা সিনিয়র আছেন তারা আমাকে দায়িত্ব দিয়েছেন। আমি আমার দায়িত্ব অবশ্যই নিষ্ঠার সঙ্গে পালন করার চেষ্টা করবো।

আল্লামা শাহ আহমদ শফীর মৃত্যুর পর কে হচ্ছেন আমির তা নিয়ে ছিল আলেম-ওলামাদের মধ্যে সরব আলোচনা। তবে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গিয়েছিল, আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী আমির এবং আল্লামা নূর হোসাইন কাসেমী মহাসচিব হতে পারেন।

উল্লেখ্য, ২০১০ সালের ১৯ জানুয়ারি গঠিত হয়েছিল হেফাজত ইসলাম বাংলাদেশ। হাটহাজারীর দারুল উলুম মুঈনুল ইসলাম মাদরাসার প্রধান পরিচালক আল্লামা শাহ আহমদ শফীকে আমির ও মাদ্রাসার তৎকালীণ সিনিয়র মুহাদ্দিস আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরীকে মহাসচিব করে হেফাজতের ২২৯ সদস্যের মজলিসে শূরা কমিটি গঠন করা হয়েছিল সে সময়।

চলতি বছরের ১৮ সেপ্টেম্বর আল্লামা শাহ আহমদ শফী ইন্তেকাল করায় আমিরের পদটি শূন্য হয়। তার মৃত্যুর পর হেফাজতের কর্মকাণ্ড কিছুটা শিথিল থাকায় এ নিয়ে তেমন সরব দেখা যায়নি আলেমদের। তা ছাড়া হাটহাজারী মাদ্রাসার নিয়ন্ত্রণ নিয়ে সম্প্রতি অনুষ্ঠিত বিক্ষোভের কারণেও হেফাজত নেতাদের মধ্যে কিছুটা ফাটল দেখা দিয়েছে।

এর মধ্যেই রোববার অনুষ্ঠিত হয় হেফাজতের সম্মেলন। যেখানে নির্ধারিত হয়েছে আমির ও মহাসচিবসহ ১৫১ সদস্যবিশিষ্ট কেন্দ্রীয় কমিটি। সারাদেশের বিভিন্ন জেলার প্রায় সাড়ে ৩শ’ কাউন্সিলর এতে ভোট প্রদান করেন।