আজ ৮ই কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৪শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

৩২৬ থেকে ৩০২!
৩২৬ থেকে ৩০২!

৩২৬ থেকে ৩০২!

প্রথমবার্তা প্রতিবেদকঃ বর্তমানে সামাজিক অপরাধ প্রবণতা আশঙ্কা জনক হারে বৃদ্ধি ওইসব অপরাধে থানা ও আদালতে বেড়েছে মামলার সংখ্যা। এক সময়ের গ্রামের খেটে খাওয়া মানুষ আইন সম্পর্কে অজ্ঞ থাকলেও মামলার কারণে পক্ষের আইনজীবীদের কল্যাণে দিনে দিনে গ্রামাঞ্চলের মানুষগুলো আইনের ধারা সম্পর্কে পরিপক্ক হতে শুরু করে।

 

সামান্য ঝগড়া-বিবাদে প্রতিপক্ষকে ঘায়েল করতে হত্যা চেষ্টা মামলা দায়ের করে ছুটাছুটি শুরু হয় হাসপাতাল, আদালত ও আইনজীবীদের দ্বারে দ্বারে। হাসপাতালে চিকিৎসাপত্রে গ্রিভিয়াস লিপিবদ্ধ করা এবং মামলার অভিযোগ পত্রে হত্যা চেষ্টা মামলার ধারা ৩২৬ নিশ্চিত করাই হয় প্রধান লক্ষ্য। এমনই আইনের ধারায় প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে কুমিল্লার চান্দিনায় পিতার হাতে নৃশংসভাবে খুন হয় মাদরাসা পড়ুয়া কিশোরী সালমা আক্তার।

 

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, জমি সংক্রান্তের বিরোধের জের ধরে প্রতিপক্ষের সাথে তুচ্ছ মারামারিতে আহত হয় সালমা আক্তারের মা। ঘটনায় থানায় মামলা করেন সালমা আক্তারের পিতা সোলেমান ব্যাপারী। থানা পুলিশের সাথে যোগাযোগ করে বহু চেষ্টা করেছিলেন ৩২৬ ধারা যুক্ত করে মামলা লিপিবদ্ধ করতে। পুলিশের সন্মতি না পেয়ে অবশেষে ৩২৩ ধারায় মামলা করেন সোলমান ব্যাপারী। কিন্তু বাদীর মাথা থেকে কিছুতেই নামছে না ৩২৬ ধারা। পরদিন তিনি কুমিল্লার এক আইনজীবীর কাছে পরামর্শ নেয়। আইনজীবীও তাদেরকে জানিয়েছিলেন, ‘বড় ধরণের কাটাছেড়া না হলে পুলিশ ৩২৬ ধারায় মামলা নেয় না। ভূয়া সার্টিফিকেটও নেওয়া সম্ভব হয় না’।

 

চান্দিনা থানা পুলিশ জানান, আইনজীবীর সাথে পরামর্শের পর থেকে সোলেমান ব্যাপারী ও তার সহযোগীরা পরিকল্পনা করতে শুরু করেন কিভাবে নিজেদের শরীর নিজেরা কেটে প্রতিপক্ষকে ৩২৬ ধারায় মামলায় ফাঁসানো যায়। সোলেমান এর বন্ধু খলিল মিয়া পেশায় পরোটা তৈরির কাজ করলেও থানায় যাতায়াত করে মানুষের কাছে নিজেকে একজন বিশেষ ব্যক্তির পরিচয় দিতে শুরু করেন। ওই খলিল মিয়া ধারণা দেন কিভাবে কাটাছেড়া করতে হবে। সোলেমান এর উকিল শ্বশুর আব্দুর রহমান এর ঘরে বসেই প্রথমে পরিকল্পনা করেন মেয়েকে কুপিয়ে রক্তাক্ত যখম করা। পরবর্তী তাদের মধ্যে কেউ কেউ বলেন, মেয়ে যদি প্রকাশ করে দেয় তাহলে নিজেরাই ফেঁসে যাবে। মেয়েকে খুন করে হত্যা মামলা করাই হবে নিরাপদ। ১ অক্টোবর রাতে পরিকল্পনা মোতাবেক মেয়েকে খুনের পরদিন ২ অক্টোবর প্রতিপক্ষ ভাতিজাদের বিরুদ্ধে ৩০২ ধারায় হত্যা মামলা করলে সোলেমান। বিধিবাম! তাতে নিজেই ফেঁসে গেলেন জঘন্য পিতা সোলেমান ব্যাপারী।

 

কুমিল্লা জজ কোটের সিনিয়র আইনজীবী শাহজালাল মিঞা শিপন জানান, যেকোনো মামলা সম্পর্কে ধারণা নিতে বা মামলা পরিচালনা করতে আইনজীবীদের দ্বারস্থ হবেন এটাই স্বাভাবিক। আইনজীবীরা সঠিক নির্দেশনা দিয়ে পক্ষকে বুঝানোই তার মূল দায়িত্ব। তবে কোনো আইনজীবী যদি অতিউৎসাহী হয়ে পক্ষকে অপরাধ কর্মকাণ্ড করার পরামর্শ দেয় সেটা দুঃখজনক।

 

চান্দিনা থানার ওসি মোহাম্মদ আরিফুর রহমান জানান, ৩২৬ ধারাই কাল হলো নিষ্পাপ সালমা আক্তারের। জঘন্য পিতার হাতে নির্মমভাবে খুন হয় কিশোরী সালমা। এ ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে আরো একটি হত্যা মামলা দায়ের করা হবে।