1. [email protected] : bijoy : bijoy Book
  2. [email protected] : News Room : News Room
  3. [email protected] : news uploader : news uploader
  4. [email protected] : prothombarta :
কলেজে ভর্তি হতে পারবো না টাকার অভাবে?
রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ১২:৫২ দিন

কলেজে ভর্তি হতে পারবো না টাকার অভাবে?

  • পোষ্ট হয়েছে : রবিবার, ১১ ডিসেম্বর, ২০২২

প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক: আবেগে অনেক কথাই বলে ফেললো নুরী আক্তার। কান্নাজড়িত কণ্ঠে বললো, টাকার অভাবে আমি কি কলেজে ভর্তি হতে পারবো না? আমার স্বপ্ন কি স্বপ্নই রয়ে যাবে? এতদিনের শ্রম কি এভাবেই ধুলিস্মাৎ হয়ে যাবে? গরীব হয়ে জন্মেছি বলেই হয়তো অর্থাভাবে প্রতিপদে এমন প্রতিবন্ধকতা আমার। আজ অবধি প্রাইভেট কোচিং কাকে বলে জানি না। ওপরের ক্লাসের আপা-ভাইয়াদের বই আর নোট ছিল আমার গাইড আর টেস্ট পেপার।

 

অনেকেই ঝলমলে পোশাকে আবৃত হয়ে স্কুলে এলেও আমার পক্ষে তা ছিল অসম্ভব। আর এসবের মূল কারণ ছিল আর্থিক সমস্যা। আমার বাবা একজন রিকশাচালক। মা বহুদিন ধরে নানা রোগে ভুগছেন। আমরা দুই বোন ও দুই ভাই। আমি পরিবারের দ্বিতীয় সন্তান।

 

সম্প্রতি বিজ্ঞান বিভাগ থেকে এসএসসি-তে জিপিএ-৫ পেয়ে উত্তীর্ণ হয়েছে নুরী আক্তার। নীলফামারীর জলঢাকা উপজেলা ও নীলফামারী সদর সীমান্তঘেঁষা রামনগর ১ নম্বর ওয়ার্ড চরচরাবাড়ী বোচারখাল এলাকায় তার বাড়ী। ওই এলাকার নুর ইসলাম ও বিউটি বেগম দম্পত্তির কন্যা নুরী আক্তার।

 

নুরী আক্তার বলে, আমি চরচরাবাড়ী উচ্চ বিদ্যালয় হতে চলতি বছর এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নিয়ে জিপিএ-৫ পেয়ে উত্তীর্ণ হই। রোগী মায়ের দিকে তাকিয়ে ডাক্তার হবার আশা আছে। পড়াশোনা চালিয়ে যেতে আমার সহযোগিতার প্রয়োজন। আর কেউ পাশে না দাঁড়ালে হয়তো আমার শিক্ষাজীবনের এখানেই সমাপ্তি ঘটবে।

 

নুরীর বাবা নুর ইসলাম জানান, সংসার চালাতে একমাত্র আমাকেই আয় করতে হয়। কখনো অসুস্থ হলে আমাদেরকে অনেক সময় অনাহারে উপবাসে দিন পার করতে হয়। তারপরও অনেক কষ্ট করে তাকে এ পর্যন্ত নিয়ে এসেছি। এখন এমন অবস্থা খাবার জোগানোই দায়, আর তার পড়ার খরচ কিভাবে বহন করবো সেটাই ভেবে পাচ্ছি না।

 

ওই ইউনিয়নের ওয়ার্ড সদস্য আনারুল ইসলাম বলেন, নুরী আক্তার যেন গোবরে পদ্মফুল। ছোটবেলা হতে মেয়েটি খুব মেধাবী। তার পাশে সহযোগিতার হাত বাড়ালে সে শুধু এলাকায় নয়, দেশের মুখ উজ্জ্বল করতে পারবে বলে আমি বিশ্বাস রাখি।

 

চরচরাবাড়ী উচ্চ বিদ্যালয় প্রধানশিক্ষক এ বি এম লুৎফুল কাদের কালের কণ্ঠকে বলেন, ৬ষ্ঠ শ্রেণিতে ভর্তির পর হতে নুরী আক্তারকে আমাদের মেধাবী মনে হয়েছে। পরে দেখি সত্যিই সে মেধাবী। তার পরিবারের আর্থিক সামর্থ্যের কথা বিবেচনা করে আমাদের এখানে তাকে প্রায় বিনা বেতনে পড়ার সুযোগ দিয়েছিলাম।

 

এখন তার পাশে কেউ সহযোগিতার হাত না বাড়ালে হয়তো তার ভবিষ্যত অনিশ্চয়তার দিকে যেতে পারে। তাই এমন মেধাবীদের লালন করতে আমাদের সবাইকে এগিয়ে আসা প্রয়োজন।

 

এলাকার অনেকেই তাই সমাজের বিত্তবানদের সহযোগিতা কামনা করেছেন। কেউ তার পড়াশোনা এগিয়ে নিয়ে সহযোগিতা করতে চাইলে এই নম্বরে যোগাযোগ বা অর্থ সহায়তা পাঠাতে পারেন- ০১৭৯২-৭৩৭৭৭১। এ নম্বরটি নুরী আক্তারের এবং তাতে বিকাশ অ্যাকাউন্ট (ব্যক্তিগত) খোলা রয়েছে।

Facebook Comments Box

শেয়ার দিয়ে সাথেই থাকুন

print sharing button
এ বিভাগের অন্যান্য খবর