আজ ১৫ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ৩০শে নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

করোনা ছড়ানোর দায়ে মালয়েশিয়ায় ভারতীয় নাগরিকের কারাদণ্ড

প্রথমবার্তা, প্রতিবেদকঃ হোম কোয়ারেন্টাইন সংক্রান্ত নির্দেশ অমান্য করে ঘরের বাইরে বের হয়ে কয়েক ডজন মানুষের মধ্যে করোনার সংক্রমণ ছড়ানোর দায়ে মালয়েশিয়ার বসবাসরত এক ভারতীয় নাগরিককে পাঁচ মাসের কারাদণ্ড দিয়েছে দেশটির একটি আদালত।মালয়েশিয়ার রাষ্ট্রায়ত্ত বার্তা সংস্থা বারনামার বরাতে এ খবর জানিয়েছে রয়টার্স। খবরে বলা হয়, মালয়েশিয়ার উত্তরাঞ্চলীয় প্রদেশ কেদাহতে একটি রেস্তোরার মালিক ৫৭ বছর বয়সী ওই ভারতীয়র বিরুদ্ধে ১৪ দিনের বাধ্যতামূলক হোম কোয়ারেন্টাইন নির্দেশ অমান্য করার চারটি অভিযোগে এই দণ্ড দিয়েছে আদালত। তিনি গত জুলাই মাসে ভারত থেকে মালয়েশিয়ায় ফিরে অবাধে চলাচল করছিলেন বলে জানানো হয়।বার্তা সংস্থা বারনামার প্রতিবেদন অনুযায়ী শুধু কারাদণ্ড নয় ওই ভরাতীয় প্রবাসীকে ১২ হাজার রিঙ্গিত (বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় আড়াই লাখ টাকা) জরিমানা করেছে আলোর সেতার ম্যাজিস্ট্রেট কোর্ট নামে একটি বিশেষ আদালত। করোনা আক্রান্ত ওই ব্যক্তি কেদাহ’র একটি হাসপাতালে এখন চিকিৎসাধীন।কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, প্রাথমিক পরীক্ষা করিয়ে নেগেটিভ হওয়ার পর দেশ ছাড়েন ওই ব্যক্তি। এরপর মালয়েশিয়া পৌঁছালে তাকে বাধ্যতামূলক ১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইনে থাকতে বলা হয়। কিন্তু তিনি তা অমান্য করে রেস্তোরায় গেলে তিনিসহ তার পরিবারের সদস্য, রেস্তোরার কর্মী ও গ্রাহকরাও করোনায় আক্রান্ত হন।ওই ব্যক্তির মাধ্যমে তৈরি হওয়া ক্লাস্টার (গুচ্ছ) থেকে এখন পর্যন্ত মালয়েশিয়ার তিনটি প্রদেশের ৪৫ জনের দেহে মহামারি এই ভাইরাসটির সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে। এরপরই নতুন করে করোনার প্রাদুর্ভাব ছড়ানোর জন্য আটক করে দেশটির কর্তৃপক্ষ। তার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় তাকে কারাদণ্ড দিল আদালত।করোনার প্রাদুর্ভাব সফলভাবে প্রতিরোধ করতে সক্ষম মালয়েশিয়া গত মে থেকে লকডাউন সংক্রান্ত নিষেধাজ্ঞাগুলো শিথিল করতে শুরু করে। তবে সম্প্রতি নতুন করে কয়েক ডজন করোনা সংক্রমিত মানুষ শনাক্ত হওয়ার পর লকডাউন বিধিনিষেধ পুনর্বহাল করার হুঁশিয়ারি দিয়ে রেখেছে কর্তৃপক্ষ।প্রসঙ্গত, মালয়েশিয়ায় এখন পর্যন্ত ৯ হাজার ১২৯ জনের দেহে মহামারি করোনাভাইরাস সংক্রমন শনাক্ত হয়েছে। আক্রান্তদের মধ্যে মারা গেছেন ১২৫ জন। দেশটিতে অনেকে প্রবাসীর দেহে ভাইরাসটির সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে।