আজ ১৫ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ৩০শে নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

রাষ্ট্রপতির গভীর শোক প্রকাশ চিত্রশিল্পী মর্তুজা বশীরের মৃত্যুতে

প্রথমবার্তা, প্রতিবেদকঃ  বাংলাদেশের আধুনিক চিত্রকলার অন্যতম পথিকৃৎ চিত্রশিল্পী ও ভাষাসংগ্রামী মুর্তজা বশীরের মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ।তিনি মরহুমের আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন এবং তার শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।এক শোকবার্তায় রাষ্ট্রপতি বলেন, মুর্তজা বশীরের মৃত্যু দেশের শিল্প ও সংস্কৃতি জগতের জন্য এক অপূরণীয় ক্ষতি। তার সৃষ্টি ও কর্ম তরুণ প্রজন্মের জন্য চিরকাল অনুপ্রেরণার উৎস হয়ে থাকবে।আজ সকালে রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) চিকিৎসাধীন অবস্থায় বরেণ্য চিত্রশিল্পী মর্তুজা বশীর ইন্তেকাল করেন।শিল্পীর মেয়ে মুনিরা বশীর জানান, মর্তুজা বশীর অনেকদিন ধরেই ফুসফুস ও হার্টের বিভিন্ন জটিলতায় ভুগছিলেন। এর আগেও তাকে কিডনি, ফুসফুস ও হৃদযন্ত্রের জটিলতায় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এবার হাসপাতালে ভর্তি করার পর গতকাল বিকেলে জানানো হয় তিনি করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন।একুশে পদকপ্রাপ্ত চিত্রশিল্পী ও ভাষা সংগ্রামী মর্তুজা বশীরের বয়স হয়েছিল ৮৮ বছর।তার বাবা প্রখ্যাত ভাষাবিদ ড. মুহাম্মদ শহীদুল্লাহ আর মা মরগুবা খাতুন। ৯ ভাই-বোনের মধ্যে সবার ছোট তিনি। ব্যক্তিগত জীবনে তিনি ২ মেয়ে এবং ১ ছেলের পিতা। ছোট মেয়ে এবং ছেলে ব্যাংকার।শিল্পী মর্তুজা বশিরের জন্ম ১৯৩২ সালের ১৭ আগস্ট। তিনি একাধারে ভাষা সৈনিক, চিত্রকর, শিক্ষক, কবি, চলচ্চিত্র নির্মাতা, শিল্প নির্দেশক, গবেষক ও মুদ্রা বিশারদ। ১৯৮০ সালে তিনি একুশে পদক এবং ২০১৯ সালে স্বাধীনতা পুরস্কার লাভ করেন।আজ বাদ আসর বনানী কবরস্থানে তাকে দাফন করা হবে বলে মেয়ে মুনিরা বশীর জানান।