আজ ১২ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২৭শে নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

ভালোবাসার টানে সীমান্তের ওপারে গেলেন মিথিলা

প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক: করোনাভাইরাসের কারণে দীর্ঘ বিরহ শেষে ভালোবাসা মিলিয়ে দিল ওপারের খ্যাতিমান পরিচালক সৃজিত মুখার্জী ও বাংলাদেশের অভিনেত্রী রাফিয়াত রশিদ মিথিলাকে। গতকাল ১৫ আগস্ট ছিল ভারতের স্বাধীনতা দিবস। এই দিন বাংলাদেশ থেকে সীমান্ত পার করে শ্বশুরবাড়ির দেশে গেছেন মিথিলা এবং তার একমাত্র কন্যা আইরা। এ খবর সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করেছেন পরিচালক সৃজিত মুখার্জী।

স্ত্রী মিথিলার ভারত গমনের খবর জানিয়ে ফেসবুকে সৃজিত লিখেন, ‘১৯৪৭ সালের ১৫ আগস্ট ঘৃণার কারণে অনেকেই সীমান্ত পার করেছিলেন। ২০২০ সালের ১৫ আগস্ট ভালোবাসার জন্য দুজন আবারও সীমানা পার করলেন।’পোস্টের সঙ্গে পেট্রাপোল সীমান্ত পার করে মিথিলা ও তার মেয়ে আইরাকে ভারতে নিয়ে যাওয়ার বেশ কয়েকটি ছবিও পোস্ট করেছেন সৃজিত। ১৫ আগস্ট সকালে এক দেশ থেকে আরেক দেশে যাওয়ার প্রয়োজনীয় নিয়মকানুন মেনে সীমান্ত পাড়ি দেন মিথিলা এবং তার মেয়ে। ওপারে তাদের জন্য গাড়ি নিয়ে অপেক্ষায় ছিলেন সৃজিত।

সেই গাড়িতে করেই তারা বাড়িতে পৌঁছান।প্রসঙ্গত, গত ৬ ডিসেম্বর বাবারি মসজিদ ধ্বংসের দিন হিন্দু-মুসলিম মৈত্রী বার্তা দিয়ে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন পরিচালক সৃজিত মুখার্জী ও বাংলাদেশের অভিনেত্রী, সমাজকর্মী রাফিয়াত রশিদ মিথিলা। বিয়ের পর সাবেক স্বামী তাহসানের কাছে মেয়েকে রেখে মিথিলা যান মধুচন্দ্রিমা যাপনে। এরপর তিনি বাংলাদেশেই ছিলেন। করোনার লকডাউনের কারণে যাতায়াত বন্ধ হয়ে গিয়েছিল। মিথিলা তার কন্যা আইরাকেও কলকাতার একটি নামী স্কুলে সৃজিত ভর্তি করিয়েছেন বলে শোনা যাচ্ছে।