আজ ১০ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২৫শে নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

সরকারের সঙ্গে মতবিরোধে প্রাণ গেল ফিলিপাইনের মানবধিকার কর্মীর!

প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক:  মতের বিরুদ্ধে যাওয়ায় জীবন দিতে হলো মানবধিকার নেত্রী জারা আলভেরজকে। এই ঘটনার মাধ্যমে প্রেসিডেন্ট রদেগ্রো দুর্তেতে থাকাকালীন সময়ে মানবধিকার সংস্থার ১৩ জনের প্রাণহানির ঘটনা ঘটল ফিলিপাইনে।

মানবধিকার জোটের প্রাক্তন শিক্ষা পরিচালক জারা আলভেরজ গুলিবিদ্ধ হয়ে সোমবার সন্ধ্যায় মারা যান। ওই সময় তিনি খাবার কিনে বাড়ির দিকে যাচ্ছিলেন। পুলিশ জানায় ব্যাকোলোড শহরে এক অজ্ঞাত হামলাকারী তাকে হত্যা করেছে। প্রত্যক্ষদর্শীরা হামলাকারীকে ধাওয়া করার চেষ্টা করলে মোটর বাইকে করে সে পালিয়ে যায়। এই ঘটনার জের ধরে বুধবার তদন্ত করার প্রতিশ্রুতি জানিয়েছে তদন্তকারী দল, সেই সাথে তারা জানিয়েছে হামলাকারী ব্যক্তির সাথে বামপন্থী দলগুলোর কোন সম্পৃক্ততা আছে কি না তা খতিয়ে দেখা হবে।

জারা আলভেরজ মৃত্যুর কয়েকদিন আগেই একটি আইনে স্বাক্ষর করেন দুর্তেতে। যেখানে লেখা ছিল কোন ওয়ারেন্ট ছাড়াই কাউকে গ্রেপ্তার করা যাবে। এর ফলে যদিও সমালোচনার মুখোমুখি হতে পারেন প্রেসিডেন্ট।

এদিকে আলভারেজের মৃত্যুর জন্য সরকারকে দুষছে কারাপাতানের জাতীয় নেতা ক্রিস্টিনা পালাবে। তিনি বলেন, “তারা রাষ্ট্রীয় বাহিনীর কাছ থেকে প্রাপ্ত পূর্ববর্তী হুমকির কথা বিবেচনা করেই হত্যা করেছে এবং যে বা যারা হত্যা করেছে তারা  রাষ্ট্রীয় বাহিনীর অন্তর্ভুক্ত।  তিনি আরও বলেন, দুতার্তের বিচার যে সন্দেহভাজন সন্ত্রাসীদের তালিকা করেছিলেন তার মধ্যে আলভারেজও ছিলেন।

পালাবি আরো বলেন করোনার জন্য শহরের অনেক জায়গায় কারফিউ জারি করা হয়েছে এবং চেক পয়েন্ট বসানো হয়েছে।  সড়কে অনেক কড়াকড়ি মোতায়েন করা হয়েছে। এই পরিস্থিতিতে কিভাবে এত সহজে খুন করা সম্ভব হলো?

কমিউনিস্ট বিদ্রোহীরা ৫০ বছরের বেশি সময় ধরে লড়াই করে আসছে যার ফলে ৩০ হাজারের মত মানুষের মৃত্যু হয়েছে। সাম্প্রতিক বছরগুলোতে এই সংখ্যা কিছুটা কমেছে এবং ফিলিপাইন সরকার এবং কমিউনিস্ট নেতারা একটি শান্তি চুক্তিতে পৌঁছানোর চেষ্টা করছে।

সূত্র: আল জাজিরা