আজ ১০ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২৫শে নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

নিজের প্রথম গাড়িটি খুঁজে বেড়াচ্ছেন শচীন

প্রথমবার্তা, প্রতিবেদকঃ  নিজের প্রথম গাড়িকে মিস করছেন শচীন টেন্ডুলকার। মাস্টার ব্লাস্টারের প্রথম গাড়িটি ছিল একটি মারুতি ৮০০। কিন্তু সেই গাড়ি এখন আর শচীনের জিম্মায় নেই। তবু সেই গাড়ির কথা ভেবে মন খারাপ হয়ে যাচ্ছে ভারতের কিংবদন্তি প্রাক্তন ক্রিকেটারের।

 

গাড়িটি ফিরে পাওয়ার আশায় রয়েছেন তিনি। সে জন্য অনুরাগীদের কাছে সাহায্য প্রার্থনাও করেছেন শচীন। যদি কেউ কোনও সন্ধান দিতে পারে! সোশ্যাল মিডিয়ায় এক বার্তায় শচীন জানিয়েছেন, ‘আমার প্রথম গাড়ি ছিল মারুতি ৮০০।

 

দুর্ভাগ্যক্রমে গাড়িটি এখন আর আমার কাছে নেই। কিন্তু আমি তাকে ফিরে পেতে চাই। যদি কেউ গাড়িটির কোনও খোঁজ পান, তাহলে দয়া করে আমার সঙ্গে যোগাযোগ করুন।’ এমনিতেই মাস্টার ব্লাস্টারের গ্যারাজে গাড়ির অভাব নেই।

 

তবে জীবনের প্রথম গাড়ির অনুভূতিই আলাদা। বাড়ির ব্যালকনি থেকে সামনের সিনেমা হলের বাইরে পার্ক করা বিভিন্ন গাড়ির মাঝে প্রথম কেনা গাড়িটিকে না দেখে মন ভারাক্রান্ত হয়ে গিয়েছে শচীনের।

 

একই সঙ্গে স্মৃতির ঝাঁপি খুলে মুম্বাইয়ের ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামের ড্রেসিং রুমে প্রথমবার প্রবেশ করার ঘটনাও তুলে ধরেছেন লিটল মাস্টার। এই প্রসঙ্গে শচীন বলেছেন, ‘আমি বল বয় হিসেবে প্রথমবার মুম্বাইয়ের সাজঘরের বাইরে দাঁড়িয়ে ছিলাম।

 

লক্ষ্য করছিলাম, ক্রিকেটাররা কিভাবে ম্যাচের আগে নিজেদের প্রস্তুত করে। এরপরে নিজের আইডল সুনীল গাভাসকরের ডাকে প্রথমবার মুম্বইয়ের ড্রেসিং রুমে ঢোকার সুযোগ পেয়েছিলাম।

 

আমার স্পষ্ট মনে আছে, সানি ভাই ঘরের ডানদিকে একদম শেষ বেঞ্চে বসে ছিলেন। আচমকা তার ডাক পেয়ে দারুণ রোমাঞ্চকর অনুভূতি হচ্ছিল। এরপরে যখন মুম্বইয়ের হয়ে রনজি ট্রফির ম্যাচ খেলতে শুরু করি, তখন আমিও সেই বেঞ্চেই বসেছিলাম। বহুদিনের পুরানো সেই স্মৃতি আজও ভাবতে খুব ভালো লাগে।’