আজ ২০শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ৫ই ডিসেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

তরুণীর সঙ্গে অবৈধ সম্পর্ক, যুবককে পান করানো হলো প্রস্রাব! (ভিডিও)

প্রথমবার্তা, প্রতিবেদকঃ তরুণীর সঙ্গে অবৈধ সম্পর্কের অভিযোগে ভারতের রাজস্থানে এক যুবককে গাছের সঙ্গে বেঁধে জোরপূর্বক মূত্র পানে বাধ্য করা হয়েছে। এ দৃশ্য ভিডিওতে ধারণ করে তা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। ফলে তা মুহূর্তেই ভাইরাল হয়েছে।

ভারতীয় গণমাধ্যম হিন্দুস্তান টাইমসের খবরে বলা হয়েছে, রাজস্থানের বারমার জেলায় চৌহাটান পুলিশ স্টেশনের অধীনে একটি এলাকায় বর্বর এ ঘটনা ঘটে। সেখানে ওই যুবককে অবৈধ প্রেমের সম্পর্কে জড়িত থাকার সন্দেহে গাছের সঙ্গে বেঁধে রাখা হয়। কেটে দেওয়া হয় তার চুল। নির্যাতন চালানোর পর তাকে মূত্র পান করতে বাধ্য করা হয়। গোটা ঘটনার ভিডিও ধারণ করে তা ছড়িয়ে দেওয়া হয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে।

এরপর দু’পক্ষের মধ্যে একটি চুক্তি হয়। সিদ্ধান্ত হয়, কোনো পক্ষই পুলিশের কাছে যাবে না। কিন্তু ততক্ষণে ভিডিওটি ভাইরাল হয়ে যায়। পুলিশ গিয়ে হাজির হয় সেখানে। যুবককে নির্যাতনকারী ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে মামলা করে তারা। চৌহাটান পুলিশ স্টেশনের এসপি অজিত কুমার এ ঘটনার তদন্ত করছেন।

পুলিশ জানিয়েছে, বুধবার ভিডিওটি প্রকাশের পর ঘটনাটি সামনে আসে। তারা তদন্তের সময় জানতে পেরেছেন যে ঘটনাটি ২৫ জুলাই ঘটেছিল এবং ভিডিওটি ভাইরাল হয়েছে ২৮ জুলাই।

চৌহতান ব্লকের রতনপুর গ্রামের বাসিন্দা ওই যুবক ২৫ জুলাই কনরা গ্রামের একটি বাড়িতে অবৈধভাবে প্রবেশ করতে গিয়ে ধরা পড়ে। এরপর তার ওপর আক্রমণ করা হয় বলে জানিয়েছে পুলিশ।

এসপি অজিত কুমার বলেন, ভাইরাল ভিডিওতে একজনকে গাছের সঙ্গে বেঁধে রাখতে দেখা গেছে এবং কিছু লোককে তাকে মারধর করতে, চুল কাটাতে এবং তরল কিছু একটা পান করাতে দেখা যায়।

বেশ কয়েকজন সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহারকারী দাবি করেছেন যে ভিকটিমকে প্রস্রাব পান করতে বাধ্য করা হয়েছিল, তবে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা বলেছেন, ওই যুবককে পান করানো তরল প্রসাব ছিল না অন্য কিছু, পুলিশ এখনো তা যাচাই করতে পারেনি।

 

সূত্র : হিন্দুস্তান টাইমস।