আজ ১৬ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১লা ডিসেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

অল্পের জন্য রক্ষা

প্রথমবার্তা, প্রতিবেদকঃ কনটেইনার রাখার ভারসাম্য না থাকায় একটি বিদেশি কনটেইনার জাহাজ কাত হয়েছে চট্টগ্রাম বন্দর জেটিতে। আজ রবিবার সকালে বন্দরের সাধারণ কনটেইনার বার্থ (জিসিবি) এর ১১ নম্বর জেটিতে ‘ওইএল হিন্দ’ জাহাজে এই দুর্ঘটনা ঘটে। তবে অল্পের জন্য বড় ধরনের দুর্ঘটনা থেকে বেঁচে যায় ১২৬৮ কনটেইনারভর্তি বিদেশি এই জাহাজটি। রক্ষা পায় পণ্য ওঠানামার কাজে ব্যবহৃত বন্দর জেটি। আজ রবিবার জাহাজটি রপ্তানি এবং খালি কনটেইনার নিয়ে চট্টগ্রাম বন্দর ছেড়ে যাওয়ার কথা ছিল।

বিষয়টি নিশ্চিত করে চট্টগ্রাম বন্দর সচিব ওমর ফারুক কালের কণ্ঠকে বলেন, সকালে জাহাজটি জেটিতে থাকা অবস্থায় কাত হয়ে গেছে। তবে কোনো দুর্ঘটনা ঘটেনি জেটি বা জাহাজে। এখন ভারসাম্য আনার জন্য জাহাজ থেকে কিছু কনটেইনার নামানো হচ্ছে। এরপর উপযোগী হলে জাহাজটি জেটি ছেড়ে যাবে। এর আগে আমরা বিষয়টি তদন্ত করে দেখব।

পণ্যভর্তি জাহাজটিতে মোট ১২৬৮ একক কনটেইনার ছিল। এর মধ্যে পণ্যভর্তি ছিল ১১৫০ একক এবং খালি ছিল ১১৮ একক কনটেইনার। জাহাজটির বার্থ অপারেটর ছিল এ অ্যান্ড জে ট্রেডার্স। এবং শিপিং এজেন্ট ছিল জিবিক্স লজিস্টিকস।

জানা গেছে, ‘ওইএল হিন্দ’ জাহাজটি গত চট্টগ্রাম বন্দর জেটিতে পণ্য নিয়ে ভেড়ে। জাহাজ থেকে আমদানি পণ্য নামানোর পর রবিবার জাহাজটি বন্দরের ১১ নম্বর জেটি থেকে ছেড়ে যাওয়ার কথা ছিল। সেই অনুযায়ী সকালে জাহাজটি ছেড়ে যাওয়ার আগে দেখা যায় জাহাজটি কাত হয়ে জেটির সাথে লেগে গেছে। এমন সময় কাত হয় যখন জাহাজের পাশে কোনো জাহাজ ছিল না। তা নাহলে বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটত।

জানতে চাইলে এক পাইলট কালের কণ্ঠকে বলেন, জেটিতে জাহাজ ভিড়ার পর জাহাজের ক্যাপ্টেন কোথায় কোনো কনটেইনার রাখা হবে তার একটি শিডিউল দেন। মূলত জাহাজের ভারসাম্য রক্ষা করতেই এ নিয়ম পালনের তাগাদা দেন ক্যাপ্টেন। কিন্তু বার্থ অপারেটর এ নিয়ম কখনোই সঠিকভাবে মানেন না। জাহাজ ছাড়ার শেষ মুহূর্তে রপ্তানি কনটেইনার জাহাজীকরণ করেন। এর ফলে জাহাজে ভারসাম্যহীনতা তৈরি হয়। কারণ আগে থেকে খালি কনটেইনার এবং পণ্যভর্তি কনটেইনারের সমন্বয় করেই জাহাজে কনটেইনার রাখা হয় তা নাহলে যেকোনো দুর্ঘটনা ঘটতে পারে।

বন্দর হারবার বিভাগের এক কর্মকর্তা কালের কণ্ঠকে বলেন, এই ধরনের অভিযোগ প্রায়ই আসছিল। আজ রবিবার সকালে পাইলটের পক্ষ থেকে ভারসাম্যহীনতার অভিযাগ পাওয়ার পর জাহাজ পরিদর্শন করে জাহাজ থেকে ২০ পণ্যভর্তি কনটেইনার নামানোর নির্দেশনা দেওয়া হয়। সেটি নামানোর পর ভারসাম্য আসলে জাহাজ জেটি ছাড়ার নির্দেশনা দেওয়া হবে।