আজ ২০শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ৫ই ডিসেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

চাঞ্চল্যকর তথ্য বেরিয়ে এলো সুশান্তের ফরেনসিক রিপোর্টে

প্রথমবার্তা, প্রতিবেদকঃ বলিউড অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যু রহস্য ক্রমশই ঘনীভূত হচ্ছে। প্রতিনিয়ত নতুন নতুন তথ্য প্রকাশ্যে আসছে, ফলে রহস্য জটিল থেকে জটিলতর হচ্ছে। এবার অভিনেতার ফরেনসিক রিপোর্টে চাঞ্চল্যকর তথ্য বেরিয়ে এলো।সুশান্তের ময়নাতদন্তের রিপোর্ট নিয়ে আগেই নানা ধরনের প্রশ্ন উঠেছে।

 

রিপোর্টে সময় উল্লেখ না থাকায় সেই সন্দেহ আরও গুরুতর হয়েছে। এমনকি বিষয়টি নিয়ে সুশান্তের পারিবারিক আইনজীবী অভিযোগ এনেছিলেন, মুম্বাই পুলিশের করা ময়নাতদন্তের রিপোর্টে কোনো সময় উল্লেখ নেই? এ নিয়ে প্রশ্ন তোলেন বিকাশ।এবার প্রয়াত এই অভিনেতার ফরেনসিক রিপোর্টে উঠে এলো চাঞ্চল্যকর এক তথ্য।

 

জানা যায়, ময়নাতদন্তের ১৩ থেকে ১৪ ঘন্টা পূর্বেই সুশান্তের মৃত্যু হয়। তার ময়নাতদন্ত হয় ১৪ জুন রাত ১১টা ৩০ মিনিটে।এদিকে সুশান্ত মামলায় ফরেনসিক রিপোর্ট মুম্বাই পুলিশের হাতে পৌঁছায় গেল ২৭ জুলাই। এই রিপোর্ট নিয়েও তৈরী হয়েছে ধোয়াশা। ফরেনসিক রিপোর্টে উল্লেখ করা হয়েছে, যে কাপড় দিয়ে গলায় ফাঁস দেওয়া হয়েছিলো তা অন্তত ২০০ কেজি পর্যন্ত ওজন তুলতে সক্ষম।

 

পাশাপাশি সুশান্তের ঘাড়ে যে ধরনের ফাইবার পাওয়া গেছে, তার সঙ্গে ফাঁসের কাপড়ের ফাইবার একই।সিবিআই তদন্তকারী চিকিৎসকদের জিজ্ঞাসা করেছিলেন, কেন এত দ্রুত সুশান্তের ময়নাতদন্ত করা হলো? এর উত্তরে এক চিকিৎসক জানান, মুম্বাই পুলিশের নির্দেশের কারণেই তারা এমনটি করেছেন। এমনকি, বর্তমান পরিস্থিতির বিবেচনায় তার কোভিড টেস্ট করা হয়নি কেন তারও সদুত্তর দিতে পারেনি চিকিৎসকরা।

 

এখন প্রশ্ন উঠছে যে, অভিনেতা যদি সত্যিই আত্মহত্যা করেন তাহলে কি কারণে এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছিল মুম্বাই পুলিশ।সুশান্তের মৃত্যু মামলার তদন্তের নির্দেশ পেয়ে তড়িঘড়িই মাঠে নেমে পড়েছেন কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা (সিবিআই)। একের পর এক অভিযুক্তদের করছেন জিজ্ঞাসাবাদ। শেষ অবধি সুশান্ত হত্যাকাণ্ডের পানি কোন দিকে গড়াই, এখন সেটিই দেখার বিষয়।