আজ ১৪ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২৯শে নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

করোনায় আক্রান্ত ৭ হাজারের বেশি স্বাস্থ্যকর্মী

প্রথমবার্তা, প্রতিবেদকঃ দেশে এখন পর্যন্ত চিকিৎসকসহ মোট সাত হাজার ৭৮৫ জন স্বাস্থ্যকর্মী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। আজ শনিবার বাংলাদেশ মেডিক্যাল অ্যাসোসিয়েশনের (বিএমএ) সভাপতি ডা. মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন এবং মহাসচিব ডা. ইহতেশামুল হক চৌধুরী স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

 

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, সাত হাজার ৭৮৫ জনের মধ্যে চিকিৎসক আক্রান্ত হয়েছেন দুই হাজার ৬৮৮ জন, নার্স আক্রান্ত হয়েছেন এক হাজার ৯৩১ জন এবং অন্যান্য স্বাস্থ্যকর্মী আক্রান্ত হয়েছেন তিন হাজার ১৬৬ জন। এর মধ্যে করোনায় মারা গেছেন ৭৪ জন চিকিৎসক। আর করোনার উপসর্গ নিয়ে মারা গেছেন সাত জন চিকিৎসক।

 

করোনায় আক্রান্ত হয়ে গত ১৫ এপ্রিল প্রথম দেশে মৃত্যুবরণ করেন সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিক্যাল কলেজের মেডিসিন বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ডা. মঈন উদ্দীন আহমেদ। তারপর থেকে একে একে করোনায় আক্রান্ত হয়ে আরও ৭৩ জন চিকিৎসক মারা গেছেন। সর্বশেষ গতকাল (২৮ আগস্ট) করোনায় আ্ক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন কুমিল্লা জেলার সাবেক সিভিল সার্জন এবং বিএমএ’র আজীবন সদস্য ডা. মো. আব্দুল মতিন পাটোয়ারী।

 

চিকিৎসকসহ স্বাস্থ্যকর্মীদের প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনের জন্য মানসম্মত আবাসন ব্যবস্থা নিশ্চিত করার দাবি জানিয়েছে কোভিড-১৯ বিষয়ক জাতীয় পরামর্শক কমিটি। গত বৃহস্পতিবার (২৭ আগস্ট) কমিটির ১৮তম অনলাইন সভায় এই আহ্বান জানানোর কথা পরামর্শক কমিটির পক্ষ থেকে সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে।

 

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, কমিটির সভাপতি অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ শহীদুল্লার সভাপতিত্বে সভায় স্বাস্থ্যকর্মীদের প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিন ব্যবস্থা নিয়ে আলোচনা করা হয়। তাদের স্বাস্থ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করার বিষয়টি অত্যন্ত সংবেদনশীল বলে জাতীয় কারিগরি পরামশর্ক কমিটি মনে করে।

 

সেখানে বলা হয়, ইতোমধ্যেই এ বিষয়ে বাংলাদেশ মেডিক্যাল অ্যাসোসিয়েশন (বিএমএ) দেশের স্বাস্থ্যকর্মীদের পক্ষ থেকে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়কে চিঠি দিয়েছে। কিন্তু মন্ত্রণালয় থেকে এ ব্যাপারে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত জানানোর কথা বলা হলেও এখন পর্যন্ত কোনো সিদ্ধান্ত জানানো হয়নি। পরামর্শক কমিটির পক্ষ থেকেও এ ব্যাপারে ইতিমধ্যে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের কাছে মতামত দেওয়া হয়েছে। সভায় স্বাস্থ্যকর্মীদের প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনের জন্য মানসম্মত আবাসন ব্যবস্থা নিশ্চিতে পুনরায় আহ্বান জানানো হয়।