আজ ১০ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২৫শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

চলে গেলেন ভারতের গডমাদার অব কার্ডিওলজি

প্রথমবার্তা, প্রতিবেদকঃ করোনাভাইরাস কেড়ে নিয়েছে আরও এক অমূল্য প্রাণ। শনিবার রাতে করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে ভারতের প্রথম নারী কার্ডিওলজিস্ট ডা. এস আই পদ্মাবতীর। মৃত্যুর সময়ে তার বয়স হয়েছিল ১০৩ বছর।

 

১১ দিন আগে তাকে ন্যাশনাল হার্ট ইনস্টিটিউটে ভর্তি করা হয়েছিল। হাসপাতালের সিইও ডা ও পি যাদব জানিয়েছেন, দুটি ফুসফুসেই গুরুতর সংক্রমণ হয়েছিল ডা. পদ্মাবতীর। সেই কারণেই মৃত্যু হয়েছে তার।

 

পশ্চিম দিল্লির পঞ্জাবি বাগ শ্মশানে তার শেষকৃত্য সম্পন্ন হয়। কিছুদিন আগে পর্যন্তও সুস্থ জীবন কাটিয়েছিলেন ভারতের প্রথম নারী কার্ডিওলজিস্ট। ২০১৫ সাল পর্যন্ত দিনে ১২ ঘন্টা কাজ করতেন এই কিংবদন্তী চিকিত্‍সক।

 

১৯৮১ সালে তার হাতেই গড়ে ওঠে ন্যাশনাল হার্ট ইনস্টিটিউট। সেখানেই সপ্তাহে পাচ দিন রোগী দেখতেন তিনি। চিকিত্‍সক মহলে তিনি খ্যাত ‘Godmother of Cardiology’ নামে। ১৯৫৪ সালে তার হাত ধরেই উত্তর ভারতের প্রথম কার্ডিয়াক ক্যাথেটেরাইজেশন ল্যাবোরেটরি তৈরি হয় লেডি হার্ডিং মেডিকাল কলেজে।

 

১৯৬৭ সালে মৌলানা আজাদ মেডিকাল কলেজের ডিরেক্টর-প্রিন্সিপালের দায়িত্ব হাতে তুলে দেওয়া হয় ডা. এস আই পদ্মাবতীর।  সেখানেই  তিনি ভারতের প্রথম কার্ডিওলজির ডিএম কোর্স চালু করেন।

 

এখানেই পথ চলা শুরু ভারতের প্রথম করোনারি কেয়ার ইউনিট এবং করোনারি কেয়ার ভ্যানের। ১৯৬২ সালে ডা. এস আই পদ্মাবতী প্রতিষ্ঠা করেন অল ইন্ডিয়া হার্ট ফাউন্ডেশন । চিকিত্‍সা ক্ষেত্রে অনন্য অবদানের স্বীকৃতি হিসেবে ১৯৬৭ সালে পদ্ম ভূষণ এবং ১৯৯২ সালে তাকে পদ্মবিভূষণ খেতাবে ভূষিত করা হয়।