আজ ১০ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২৫শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

নতুনভাবে নিজেকে প্রস্তুত করছেন শাকিব খান

প্রথমবার্তা, প্রতিবেদকঃ ছয় মাস পর শুটিংয়ে ফিরছেন দেশের শীর্ষ নায়ক শাকিব খান। এরইমধ্যে সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছেন তিনি। সব শেষ ফেব্রুয়ারিতে তার নিজের প্রযোজিত ও অভিনীত ‘বীর’ ছবিটি মুক্তি পায়। বেশ ভালো সফলতাও পায় ছবিটি। তার পর আর শুটিং করেননি শাকিব খান। এদিকে বেশ কিছু ছবির কাজের শুরুর কথা থাকলেও তা করা যায়নি করোনা পরিস্থিতির কারণে। প্রায় ছয়মাস পর এ তারকা আবার চলচ্চিত্রের শুটিংয়ে ফিরছেন। অনন্য মামুন পরিচালিত ‘নবাব এল এল বি’ ছবি দিয়ে ফেরা হচ্ছে তার। এখানে একজন আইনজীবীর ভূমিকায় দেখা মিলবে এ নায়কের।

তার নায়িকা হিসেবে আছেন মাহি। আরো রয়েছেন স্পর্শিয়া। ছবিটির শুটিং এরইমধ্যে শুরু হয়েছে। এ বিষয়ে শাকিব খান বলেন, শুটিং শুরু করছি। তার জন্য সব প্রস্তুতি শেষ করেছি। মানুষ এখন ভালো, বড় ও আলাদা কিছু চায়। সেরকম কিছুই করবো। শুটিংয়ে ফেরার জন্য নিজেকে নতুনভাবে প্রস্তুত করছি। করোনা থাকলেও, ছবির ক্ষেত্রে কোনো কম্প্রোমাইজ হবে না।

একে তো ইন্ডাস্ট্রির অবস্থা খারাপ ছিল, করোনা এসে আরও ক্ষতি করলো। আবারও সর্বোচ্চ চেষ্টা থাকবে ভালো কাজ দিয়ে সবকিছু চাঙ্গা করার। সবকিছু ঠিক থাকলে ১০ সেপ্টেম্বর থেকে ঢাকার মধ্যেই ‘নবাব এলএলবি’-এর শুটিংয়ে অংশ নেয়ার কথা জানান শাকিব খান। তিনি বলেন, দেশের অংশের শুটিং শেষে গানের শুটিং হবে লন্ডনে। ওটিটি প্লাটফর্মে মুক্তি টার্গেট থাকলেও সিনেমা হলেও মুক্তি দেয়া হবে। আসন্ন শারদীয় উৎসবে (দুর্গাপূজা) উপলক্ষে মুক্তি পাবে ‘নবাব এলএলবি’।

এদিকে শাকিব খান ১০ সেপ্টেম্বর থেকে শুটিংয়ে অংশ নিলেও ‘নবাব এলএলবি’র শুটিং ইউনিট আগেই কাজ শুরু করেছে। ৩০শে আগস্ট থেকে অন্য শিল্পীরা শুটিং শুরু করেছেন। অর্চিতা স্পর্শিয়া ৩ সেপ্টেম্বর, মাহিয়া মাহি ৫ সেপ্টেম্বর থেকে শুটিংয়ে অংশ নেবেন। শাকিব বলেন, ইতোমধ্যেই লন্ডনে গানের শুটিংয়ের জন্য ওয়ার্ক পারমিটের আবেদন করা হয়েছে। টানা শুটিং হবে এ ছবির। আগামি ২৩শে অক্টোবর ‘নবাব এলএলবি’ মুক্তি দেয়া হবে। সেলেব্রেটি প্রডাকশনের প্রযোজনায় ‘নবাব এলএলবি’র গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে আরও অভিনয় করবেন শহীদুজ্জামান সেলিম, সুমন আনোয়ার, আনোয়ারা প্রমুখ।

এ ছবির গল্প নির্মাতা অনন্য মামুনের, কাহিনি বিন্যাস পাপ্পু রাজের এবং সংলাপ করছেন শাহজাহান সৌরভ। চলতি সময়ের চলচ্চিত্র নিয়ে শাকিব খান বলেন, এমনিতেই আমাদের চলচ্চিত্রে নানা সংকট রয়েছে। এর ওপর করোনার কারণে যে ক্ষতি হলো তা পূরণ হতে সময় লাগবে। তবে সবার সম্মিলিত চেষ্টা লাগবে। আমিও আমার তরফ থেকে সর্বোচ্চ চেষ্টা করে যাবো সিনেমার উন্নয়নে।