আজ ১৫ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ৩০শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

মিমির জবাব

প্রথমবার্তা, প্রতিবেদকঃ অবশেষে জল্পনা, বিতর্কে জল ঢেলে প্রকাশ্যে এলো মিমি চক্রবর্তীর ‘দুর্গা দুর্গতিনাশিনী’র প্রোমো।  সোশ্যাল মিডিয়ায় দিন কয়েক আগেই মহিষাসুরমর্দিনীরূপে ছবি শেয়ার করে মারাত্মক ট্রোলড হয়েছিলেন তিনি।

 

টিভির পর্দায় মহামায়ারূপে কেমন লাগবে নায়িকাকে? আদৌ কি মিমিকে মানাবে দুর্গার ভূমিকায়? অনেকেই সন্দিহান ছিলেন এই বিষয়ে। কেউ বা আবার নেটদুনিয়াতেই কটাক্ষ করে সাফ জানিয়ে দিয়েছিলেন যে, এই অবতারে মিমি বেমানান!

 

এবার ছবি পোস্ট করার পর ঠিক যতটা ট্রোল হয়েছিলেন, প্রোমো প্রকাশ্যে আসার পর যেন তার উলাট-পুরাণ! দুর্গার ভূমিকায় ‘মিমি বেমানান’ অনেকেই যে সে ধারণা বদলে ফেলেছেন, তা প্রোমোর কমেন্ট বক্সে অনুরাগীদের শুভেচ্ছাবার্তা দেখলেই বোঝা যায়।

 

আদতে প্রমোর মাধ্যমে ভালো জবাবই দিয়েছেন তিনি সমালোচকদের। প্রোমোতে মহামায়ারূপে মিমি চক্রবর্তীর পাশাপাশি রাম-সীতার ভূমিকায় মধুমিতা সরকার এবং জিতু কামালকেও দেখা গেল।

 

‘অকাল বোধন’, সম্পূর্ণ নতুন একটা চিত্রনাট্য। যেখানে নাচ ও অভিনয়ের থেকেও বেশি প্রাধান্য পেয়েছে গল্প বলা। জানিয়েছিলেন খোদ পরিচালক কমলেশ্বর মুখোপাধ্যায়।এর পাশাপাশি, সাংসদ-অভিনেত্রীর চূড়ান্ত পেশাদারিত্বের জন্য তার প্রশংসাও করেছেন তিনি।

 

মহিষাসুরমর্দিনীর অবতারে মিমিকে দেখা যাবে স্টার জলসার পর্দায় আগামী ১৭ সেপ্টেম্বর ভোর ৫টায়। মিমিকে কেন দুর্গার ভূমিকায় বেছে নিয়েছেন? যাবতীয় বিতর্কের জবাব দিতে কমলেশ্বরের মন্তব্য, দর্শকরা আসলে দুর্গার মধ্যে লার্জার দ্যান লাইফ কাউকে দেখতে চান।

 

সেক্ষেত্রে রুপালি পর্দার অভিনেতা, অভিনেত্রীদের সাধারণত এই পৌরাণিক চরিত্রের জন্য বেছে নেওয়া হয়েছে। যেহেতু সেই অতিবাস্তব জীবনের প্রত্যাশাকে তুষ্ট করেন সেকারণেই নামকরা মুখ থাকলে সুবিধাই হয়।

 

বর্তমান সময়ে টিআরপির কথা মাথায় রেখেই যে সিংহভাগ ক্ষেত্রে অভিনেতা-অভিনেত্রীদের নির্বাচন করা হয়, তাতে কোনও সন্দেহ নেই। দর্শক যা চাইছে, সেটার উপর ভিত্তি করেই টেলিভিশন চ্যানেল চলে।

 

আর তা মাথায় রেখেই চরিত্র চিত্রায়ণ করা হয়। তবে কাস্টিংয়ের ক্ষেত্রে আমাদের নিজস্বও একটা আলাদা পছন্দ রয়েছে। সেক্ষেত্রে মহালয়ার জন্য আমি নিজে মিমির কথা বলেছিলাম।