আজ ১২ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২৭শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

আওয়ামী লীগ নেতার ‘কবল’ থেকে সরকারি জমি উদ্ধার

প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক: ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলার বড়িকান্দি ইউনিয়নের শ্রীঘর বাজারে বেআইনিভাবে দখল করে নেওয়া আওয়ামী লীগ নেতার কবল থেকে অবশেষে সরকারি খাসজমি উদ্ধার করল স্থানীয় প্রশাসন। শুক্রবার উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ইকবাল হাসানের নেতৃত্বে এক অভিযানে ওই সরকারি জায়গা উদ্ধার করা হয়।

 

জানা গেছে, নবীনগর সলিমগঞ্জ সড়কের পাশে বিশাল পশুর হাট খ্যাত ঐতিহ্যবাহী শ্রীঘর বাজারে সরকারের ১ নম্বর খাস খতিয়ানভুক্ত একটি জায়গা বেআইনিভাবে দখল করে নেন সলিমগঞ্জ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম। পরে তিনি সেখানে একটি দোকানঘর নির্মাণ করেন। এতে স্থানীয় জনমনে অসন্তোষ বিরাজ করছিল।

 

কিন্তু জাহাঙ্গীর ক্ষমতাসীন পার্টির নেতা হওয়ায়, ভয়ে কেউ প্রতিবাদের সাহস করেনি। বিষয়টি উপজেলা প্রশাসনের নজরে এলে এসিল্যান্ড ইকবাল হাসানের উদ্যোগে ওই দোকানঘর গুঁড়িয়ে দেওয়া হয়।এলাকাবাসী জানায়, জায়গা দখলকারী ক্ষমতাসীন দলের নেতা হওয়ায়, কেউ তাঁর বিরুদ্ধে কথা বলতে সাহস করেনি। তবে প্রশাসন সময়মতো সঠিক কাজটি করায় সাধুবাদ জানাই।

 

আওয়ামী লীগ নেতা জাহাঙ্গীর আলম বলেন, জায়গাটি লিজ পাওয়ার জন্য আমি সংশ্লিষ্ট দপ্তরে আবেদন করেছি এবং এর যাবতীয় কাগজপত্র এসিল্যান্ড অফিসে জমা দেওয়া আছে। এর পরও কেন আমার দোকান উচ্ছেদ করা হলো, বুঝতে পারলাম না।

 

নবীনগরের এসিল্যান্ড ইকবাল হাসান সাংবাদিকদের বলেন, লিজের জন্য আবেদন করেই কেউ সরকারি জায়গায় এভাবে ঘর তুলতে পারে না। তাই সরকারি জায়গায় বেআইনিভাবে তোলা ওই দোকানঘর উচ্ছেদ করা হয়েছে।

 

উল্লেখ্য, জাহাঙ্গীর আলমের বিরুদ্ধে চাকরি দেওয়ার কথা বলে দুই চাকরিপ্রার্থীর কাছ থেকে মোটা অঙ্কের টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগে সংবাদপত্রে রিপোর্ট হয়। এর পরিপ্রেক্ষিতে মো. আক্তারুজ্জামান নামে স্থানীয় এক সাংবাদিকের বিরুদ্ধে মিথ্যা চাঁদাবাজির মামলা করে হয়রানির অভিযোগও রয়েছে তাঁর বিরুদ্ধে।