আজ ১৫ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ৩০শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

গোবিন্দগঞ্জে অরক্ষিত লেভেল ক্রসিং, দুর্ঘটনার শঙ্কা

প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক: গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জের মহিমাগঞ্জ রেল স্টেশনের দুইপাশে দুটি লেভেল ক্রসিং অরক্ষিত রয়েছে। গুরুত্বপূর্ণ এই দুই ক্রসিংয়ে কোনও প্রতিবন্ধক নেই। এমনকি হাতের ইশারায় যানবাহন থামানোর জন্য নেই কোনও প্রহরী। প্রতিদিন শত শত মানুষ ও যানবাহন ঝুঁকি নিয়ে রেল লাইনের উপর দিয়ে চলাচল করছে।

যেকোন সময় মারাত্মক দুর্ঘটনা ঘটে যেতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

আজ বুধবার মহিমাগঞ্জের এই লেভেল ক্রসিংয়ে গিয়ে দেখা যায়, খোলা এই দুই লেভেল ক্রসিং দিয়ে মানুষ চলাচল করছে কোনও ধরনের সতর্কতা ছাড়াই। এদিক-ওদিক না তাকিয়ে রেলক্রসিং অতিক্রম করছে রিকশা-ভ্যান, অটোরিকশা, ছোট-বড় ট্রাকসহ নানা ধরনের যানবাহন।

ক্রসিং দুইটির মধ্যে মহিমাগঞ্জ রেল স্টেশনের উত্তরে বামনহাজরা রেল ক্রসিং। এক সময় এই ক্রসিং পারাপার হয়ে পার্শ্ববর্তী সাঘাটা উপজেলার কচুয়া, কামালেরপাড়া ও জুমারবাড়ি ইউনিয়নের লক্ষাধিক মানুষ হেঁটে মহিমাগঞ্জ ও গোবিন্দগঞ্জে যাতায়াত করতেন। সেসময় লোকজন কম ছিল।

কিন্তু সাম্প্রতিক সময়ে রেল ক্রসিংয়ের উভয় পাশে রাস্তা পাকা হয়েছে। এ কারণে গোবিন্দগঞ্জ ও সাঘাটা উপজেলার মধ্যে যোগাযোগ ব্যবস্থা উন্নত হয়েছে। ফলে এই রেলক্রসিংয়ের ব্যস্ততা বেড়েছে। এই ক্রসিং দিয়ে প্রতিদিন শত শত যানবাহন ও পথচারী চলাচল করছে। রাস্তা পাকা হওয়ায় রেল গেটটির গুরুত্ব বেড়ে গেছে।

অন্যটি হলো মহিমাগঞ্জ রেল স্টেশনের দক্ষিণে জিরাই রেল ক্রসিং। এই ক্রসিংয়ের উভয়পাশের রাস্তাও পাকা। অরক্ষিত এই রেল ক্রসিং অতিক্রম করে দুর্ঘটনার আশংকা নিয়েই যানবাহন ও পথচারীদের চলাচল করতে হচ্ছে।

রেল ক্রসিংয়ের পূর্বপাশে মহিমাগঞ্জ ইউনিয়নের জিরাই, বাঙ্গাবাড়ি, পান্তামাড়ি গ্রাম। এসব গ্রামের মানুষকে জিরাই রেলক্রসিং পারাপার হয়ে মহিমাগঞ্জ ও গোবিন্দগঞ্জসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে যেতে হচ্ছে। একইভাবে মহিমাগঞ্জ ও গোবিন্দগঞ্জের শত শত মানুষ এই রেল ক্রসিং পার হয়ে বাঙ্গাবাড়ি ও পান্তাপাড়া গ্রামে যায়।

এ বিষয়ে মহিমাগঞ্জ ইউপি চেয়ারম্যান রুবেল আমিন শিমুল বলেন, রেলওয়ে লেভেল ক্রসিং দুটি খুবই ঝুঁকিপূর্ণ। আশা করি, জনগণের জীবনের ঝুঁকি কমাতে দ্রুত সমস্যাটির সমাধান কল্পে ব্যবস্থা গ্রহণ করবে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ।

এ ব্যাপারে মহিমাগঞ্জ রেল স্টেশনের ভারপ্রাপ্ত স্টেশন মাস্টার সোহাগ হোসেন বলেন, এ দুইটি রেলক্রসিং খুবই গুরুত্বপূর্ণ। তাই রেলক্রসিং দুইটিতে গেইট স্থাপন ও গেইটম্যান নিয়োগে ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য কর্তৃপক্ষকে লিখিতভাবে জানানো হয়েছে।

উল্লেখ্য, মহিমাগঞ্জ রেল স্টেশনের দক্ষিণ দিকের জিরাই রেল ক্রসিংয়ে ২০১২ সালে ট্রেনের সাথে একটি ঘোড়ার গাড়ির সংঘর্ষে সেকেন্দার নামে এক ব্যক্তি নিহত হন।