আজ ১১ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২৬শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

চীনের জিনজিয়াংয়ের সঙ্গে রপ্তানি বন্ধ করছে যুক্তরাষ্ট্র

প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক: চীনের জিনজিয়াং প্রদেশে জোরপূর্বক শ্রমিকদের দিয়ে বিভিন্ন পণ্য উৎপাদনের কাজ করানোর অভিযোগ এনে ওই প্রদেশের সঙ্গে রপ্তানি বন্ধ করে দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র। নিষেধাজ্ঞার আওতায় থাকা গুরুত্বপূর্ণ পণ্যগুলো হচ্ছে সুতা এবং টমেটোর তৈরি বিভিন্ন জিনিস।

অনেকদিন ধরেই জিনজিয়াং প্রদেশে উইঘুরদের প্রতি চীনের দমন-পীড়নের ঘটনায় নানাভাবে চাপ দিয়ে যাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র।

এর আগে জিনজিয়াং প্রদেশে সংখ্যালঘু উইঘুর মুসলিমদের বিরুদ্ধে মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগে চীনের বেশ কয়েকজন জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়।

জিনজিয়াং প্রদেশের সংখ্যালঘু উইঘুর মুসলিম এবং অন্যান্যদের বন্দিশিবিরে আটকে রাখার অভিযোগ রয়েছে চীনের বিরুদ্ধে। যদিও চীন বরাবরই এই অভিযোগ অস্বীকার করে আসছে।

এর আগে চীনের ক্ষমতাসীন কমিউনিস্ট পার্টির জিনজিয়াং শাখার কর্মকর্তাসহ জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা জারি করে যুক্তরাষ্ট্র। এতে যুক্তরাষ্ট্রে তাদের সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত, ভ্রমণ নিষিদ্ধ এবং মার্কিনিদের সঙ্গে তাদের ব্যবসায় নিষেধাজ্ঞা দেয়া হয়।

যুক্তরাষ্ট্রের স্টেট ডিপার্টমেন্টের দাবি, জিনজিয়াংয়ে নিজেদের স্বার্থে শ্রমিকদের দিয়ে জোরপূর্বক কাজ করাচ্ছে চীন। বিশ্বের বৃহত্তম এবং চীনের তুলা, সুতা ও টেক্সটাইল শিল্পের কেন্দ্রস্থল জিনজিয়াং। দেশটির ৮৪ শতাংশ তুলা সরবরাহ হয় এ অঞ্চল থেকে।

চলতি বছরের শুরুতে মার্কিন আইনপ্রণেতারা অভিযোগ করেছিলেন যে, জিনজিয়াংয়ে যেসব পণ্য তৈরি হয় তার সবগুলোই জোরপূর্বক শ্রমের বিনিময়ে। চীনকে এ বিষয়ে সনদ দেখানোর দাবি জানায় তারা যে, ওই এলাকায় আসলেই শ্রমিকদের জোরপূর্বক কাজ করানো হচ্ছে না।