আজ ১১ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২৬শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

বিয়ের আসর থেকে কনেকে অপহরণচেষ্টা ছাত্রলীগ নেতার

প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক: পিরোজপুর শহরে ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতির বাড়িতে পিস্তল ও চাকু নিয়ে ফিল্মি কায়দায় বিয়ের আসর থেকে কনেকে অপহরণের চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক অনিরুজ্জামান অনিকের বিরুদ্ধে। গতকাল শুক্রবার বিকেলে শহরের শিক্ষা অফিস সড়কের আওয়ামী লীগের পৌরসভার ৫ নম্বর ওয়ার্ড সভাপতি মো. দেলোয়ার হোসেনের বাসায় এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় আজ শনিবার ওই ছাত্রলীগ নেতা ও তার সহযোগীদের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের হয়েছে।

 

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কনের বাবা ও পিরোজপুর পৌরসভার ৫ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি দেলোয়ার হোসেন। অভিযোগে অপর নামীয় আসামিরা হলেন শহরের ধুপপাশা এলাকার আবুল কালামের দুই ছেলে আব্দুল আলিম ও মো. শাওন।

 

অভিযোগ ও প্রত্যক্ষদর্শীদের বিবরণে জানা যায়, গতকাল শুক্রবার বাদ আছর দেলোয়ার হোসেনের মেজ মেয়ের (২২) আকদ অনুষ্ঠান ছিল। বিকেলে জেলার ইন্দুরকানী উপজেলার বরপক্ষ দেলোয়ারের বাড়িতে বরসহ আত্মীয়-স্বজন নিয়ে আসেন। আকদ অনুষ্ঠান শুরুর আগেই জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক অনিরুজ্জামান অনিক কিছু সন্ত্রাসী নিয়ে তাদের বাড়িতে ঢুকে অনুষ্ঠান থেকে তার মেয়েকে জোরপূর্বক অপহরণ করে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। এসময় মেয়ে ফারহানা আক্তার আইভিকে জাপটে ধরে তার শ্লীলতাহানী ঘটায় এবং পিস্তল বের করে ভয় দেখায়।

 

তখন উপস্থিত আত্মীয়-স্বজন ও প্রতিবেশীরা বাধা দিলে তারা মেয়েকে অপহরণ করতে না পেরে বর পক্ষকে নানা হুমকি দেয়। এ ঘটনার পর গ্রাম থেকে আসা বর পক্ষের লোকজন ভয়ে বিয়ে বন্ধ করে তাদের বাড়িতে চলে যান।

 

এ সময় অনিরুজ্জামান অনিক তার সঙ্গে থাকা আব্দুল আলীম ও শাওনকে নিয়ে কনের বাবাকে হুমকি দিয়ে বলে, তার মেয়েকে আবুল কালামের ছেলে আব্দুল আলীম ছাড়া অন্য কারও সঙ্গে বিয়ে দেওয়া যাবে না। যদি বিয়ে দেওয়া হয় বাসর ঘরে মেয়ের স্বামীকে হত্যা করে লাশ গুম করা হবে এবং তার মেয়েকে অপহরণ করে নিয়ে যাওয়া হবে।

 

দেলোয়ার হোসেন তাৎক্ষনিক এই ঘটনাটি পিরোজপুর পৌর মেয়রসহ আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দকে জানান। এরপর খবর পেয়ে পিরোজপুর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাসহ একদল পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে মেয়ে পক্ষকে অভয় দেওয়ার চেষ্টা করে। তারপরও দেলোয়ারের পরিবারকে ভয়-ভীতি দেখানো হচ্ছে।

 

অভিযোগের বিষয়ে জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক অনিরুজ্জামান অনিক মেয়ে অপহরণের চেষ্টার অভিযোগ অস্বীকার করে জানান, তিনি তার এক বন্ধুর জন্য পারিবারিকভাবে বিয়ের বিষয়ে কথা বলতে গিয়েছিলেন। কিন্তু তার রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ বিষয়টি নিয়ে তার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছে।

 

এ ঘটনায় ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক অনিক, আব্দুল আলীম ও শাওনসহ অজ্ঞাত ২০/২৫ জনকে আসামি করে মামলা দেওয়ার জন্য দেলোয়ার হোসেন আজ শনিবার বিকেল ৩টায় একটি লিখিত অভিযোগ থানার পরিদর্শক আব্দুস সোবাহানের কাছে জমা দেন।পরিদর্শক আব্দুস সোবাহান বলেন, ‘ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বাইরে আছেন, থানায় এলে এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।’