আজ ৮ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২৪শে অক্টোবর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

ইসলামপুরে ঢাকনা বিহীন পৌরসভার ড্রেন মশার উপদ্রুপ বৃদ্ধি

প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক: জামালপুরের ইসলামপুরে ঢাকনা বিহীন পৌরসভার ড্রেনগুলো পরিস্কার না করায় মশার উপদ্রæপ বৃদ্ধিতে অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছে পৌরবাসী। দিনরাতে সমানতালে মশার উপদ্রæবে জনজীবন অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে। কিন্তু বেসামাল পরিস্থিতিতে মশা নিধনে নেই কার্যকর কোনো উদ্যোগ।

 

এ নিয়ে পৌরবাসীর মধ্যে তীব্র ক্ষোভ নিয়ে সোস্যাল মিডিয়ায় ঝড় উঠেছে। বন্ধ ড্রেন পরিষ্কার না করায় সৃষ্ট পানিবদ্ধতা মশা বৃদ্ধির অন্যতম কারণ হিসেবে দেখছেন পৌর বাসিন্দারা। ময়লা-আবর্জনার স্তুপে বৃদ্ধি পাচ্ছে মশার প্রজনন। মশার কামড়ে মানুষই নয়, গৃহপালিত পশু অস্বস্তিতে রয়েছে।

 

দিনের বেলায় মশার উপদ্রæব কিছুটা কম থাকলেও সন্ধ্যার পর এর যন্ত্রণা অসহনীয় পর্যায়ে পৌঁছে। সন্ধ্যা নামার সঙ্গে সঙ্গে বাসায় মশার কয়েল জ্বালাতে হয়। চলতি মাসে একবারও মশা নিধন কার্যক্রম আশানুরূপ চোখে পড়ছে না।

 

মশার কারণে রাতে সন্তানদের লেখাপড়া বিঘিœত হচ্ছে। রাতে খাওয়ার সময়ও মশার কয়েল জ্বালাতে হচ্ছে। তখন মশা মরে খাবারের মধ্যে পড়ছে। রাতে মাঝে মধ্যে মশারিতে মশা ঢুকে পড়ছে।

 

এ থেকে পরিত্রাণের দাবি জানিয়ে কাহিনী সংলাপ চিত্র নাট্য পরিচালক সৈয়দ মাসুদ রাজা সহ একাধিক জনরা নিজের ক্ষোভের কথা তুলে ধরছেন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে।

 

এছাড়াও আক্ষেপ করে মাজহারুল ইসলাম,খোরশেদ আলমসহ সুধীজনরা জানান- ড্রেন নির্মানে পুরোটাই ¯øাব ব্যবহার না হওয়ায় মশার উপদ্রæপ সহ রাতের অন্ধকারে দুর্ঘটনার স্বীকার হতে হয়।

 

পৌর এলাকার পরিস্কার হচ্ছে না ড্রেন, ফলে পানি নিস্কাশন ব্যবস্থা থমকে রয়েছে। ড্রেনে পরে থাকা ময়লা আর্বজনা ও পলির স্তুপ জমে পানি নিস্কাশন বন্দ হয়ে গেছে। ড্রেনেজ পরিস্কার না করায় দূর্গন্ধ ছরিয়ে বাতাসের সাথে মানব দেহের নিশ্বাসের সাথে প্রবেশ করছে।

 

অক্টোবরের মশা প্রজনন আরো বৃদ্ধি পাবে। মশা ও মাছির জন্ম বিস্তারে ছরিয়ে পড়বে নানা ব্যধি রোগ সহ এসিড মশার ভয়ংকর ডেঙ্গু জ্বর। এর মধ্যে গত কয়েকদিন বৃষ্টি হওয়ার পর বাসা-বাড়িতে জাঁকিয়ে বসেছে মশা। এই অবস্থায় ড্রেনেজ ব্যবস্থায় ¯øাব(ডাকনা) এবং মশা নিধনে দ্রæত কার্যকর উদ্যোগ গ্রহণের তারা মেয়র মহোদয়ের দৃষ্টি কামনা করেছেন।

 

এ ব্যাপারে পৌরসভার মেয়র আঃ কাদের শেখ জানান- ড্রেন নির্মান ও পরিস্কার কাজ চলমান রয়েছে। প্রতিটি ড্রেনেই শতভাগ ডাকনা হচ্ছে। আগামী শনিবার থেকে আবারো মশা নিধন কার্যক্রম শুরু করবো।