আজ ১১ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২৭শে অক্টোবর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

দেশের সার্বিক উন্নয়নে নারীরও উন্নয়ন দরকার : মেয়র আশরাফুল আলম লিটন

প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক: যশোর জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও বেনাপোল পৌর মেয়র আশরাফুল আলম লিটন বলেছেন, বাংলাদেশের মোট জনসংখ্যার অর্ধেক নারী। তাই নারীর উন্নয়ন ছাড়া দেশের কাঙ্খিত উন্নয়ন সম্ভব নয়। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু সংবিধানে নারী পুরুষের সমান অধিকার দিয়েছেন। বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নারীর সেই অধিকার ও ক্ষমতায়ন নিশ্চিত করতে নিরলসভাবে কাজ করছেন। অনেক বাধা বিপত্তি ও প্রতিকুলতা অতিক্রম করে নারীরা সমাজে নিজের স্থান করে নিয়েছেন। আমাদের দেশে নারীর ক্ষমতায়ন ও উন্নয়নের অনন্য উদাহরণ।

সোমবার বিকেলে বেনাপোল পৌর মিলনায়তনে উপজেলা মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের ২০২০ -২০২১ অর্থ বছরের নারীর মাতৃত্বকালীন ভাতা প্রদান ও মতবিনিময় অনুষ্ঠানে তিনি একথা বলেন।

তিনি আরো বলেন, সরকারের সহযোগীতায় দেশের নারীরা স্বাবলম্বী হচ্ছে। নারীর ক্ষমতায়ন সমমর্যাদা ও সমঅধিকার প্রতিষ্ঠায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এখন সারা বিশ্বে রোল মডেল।

রাজনৈতিক ক্ষমতায়নে বিশ্বে বাংলাদেশ পঞ্চম। দেশের প্রধানমন্ত্রী, স্পিকার, শিক্ষামন্ত্রী নারী। বিশ্বের কোথাও রাষ্ট্রীয় উঁচু পদের এতো বেশিসংখ্যক নারী নেই। বাংলাদেশে আছে।

তিনি বলেন, ২০২০-২০২১ অর্থবছরে বেনাপোল পৌর সভায় আজ ৪০ জন মাতৃত্বজনিত ভুক্তভোগী নারীকে ভাতা প্রদান করবেন সরকার। এখানে বেনাপোল পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ড থেকে আবেদন পড়েছে ৬৫টি। আমি আমার ব্যক্তিগত তহবিল থেকে প্রতি মাসে বাকি ২৫ জন গর্ভবতী মাকে ১ হাজার টাকা করে এক বছর প্রদান করব।

মতনিনিময় সভায় উপস্থিত ছিলেন শার্শা উপজেলা মহিলা বিষয়ক অফিসার জাহান-ই গুলশান, প্রশিক্ষক রাকিবুজ্জামান, বেনাপোল পৌর প্যানেল মেয়র জুলেখা বেগম, কাউন্সিলার জ্যোস্না বেগম, কামরুন্নাহার আন্না প্রমুখ।

উপজেলা মহিলা বিষয়ক অফিসার জাহান-ই গুলশান বলেন, বেনাপোল পৌর সভায় মাতৃত্বজনিত গর্ভবতী ৪০ জন নারী এ অর্থ বছরে ভাতা পাবেন। প্রতিটি মাকে ৬ মাস পর পর এ ভাতা প্রদান করা হবে। তারা তিন বছর যাবৎ এ ভাতা পাবেন। তিন বছরে মোট ভাতা পাবেন ২৮৮০০ টাকা।