আজ ৩রা কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১৯শে অক্টোবর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

সিলেটের বিশ্বনাথে নিখোঁজের একদিন পর ডোবায় মিলল কিশোরে লাশ

প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক: সিলেটের বিশ্বনাথে নিখোঁজের একদিন পর রবিউল ইসলাম (১২) নামের এক কিশোরের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। সে উপজেলার রহমান নগর গ্রামের আকবর আলীর ছেলে ও স্থানীয় গোয়াহরি লতিফিয়া-ইর্শাদীয়া মাদরাসার তৃতীয় শ্রেণির ছাত্র। আজ মঙ্গলবার সকাল ৮টায় উপজেলার রামপাশা-বৈরাগীবাজার সড়কের বাল্লার ব্রিজের পাশে একটি ডোবা থেকে কিশোরের লাশ উদ্ধার করা হয়। এমন খবরে এলাকার শত শত নারী-পুরুষ ঘটনাস্থলে জড়ো হন। ওই কিশোরকে কে বা কার হত্যা করে ডোবায় ফেলে যায়। কিশোরের শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতে চিহ্ন রয়েছে।

জানা গেছে, উপজেলার রহমান নগর গ্রামের আকবর আলীর মাদরাসাপড়ুয়া ছেলে রবিউল ইসলাম গতকাল সোমবার সকাল ১০টা থেকে নিখোঁজ হয়। নিখোঁজের ঘটনায় বিশ্বনাথ থানায় সাধারণ ডায়েরি করা হয়। কিন্তু নিখোঁজের একদিন পর মঙ্গলবার সকালে উপজেলার রামপাশা-বৈরাগীবাজার সড়কের বাল্লার ব্রিজের পাশে একটি ডোবায় ওই কিশোরের লাশ দেখতে পান এক কৃষক। এসময় তিনি স্থানীয় এলাকাবাসীকে বিষয়টি অবহিত করেন। পরে স্থানীয় লোকজন ঘটনাস্থলে ছুটে গিয়ে কিশোরের লাশ দেখতে পান। পরে তারা থানা পুলিশকে অবহিত করলে তাৎক্ষণিক পুলিশ ঘটনাস্থলে ছুটে গিয়ে লাশটি উদ্ধার করে।

এ ব্যাপারে কিশোরের পিতা আকবর আলী কান্নাজড়িত কণ্ঠে বলেন, বাড়ির পাশে রোপনকৃত জমিতে ধান দেখতে সোমবার সকাল ১০টায় রবিউল ইসলাম বাড়ি থেকে বের হয়। কিন্তু সে আর ওই দিন বাড়িতে ফিরে আসেনি।

মঙ্গলবার সকালে স্থানীয় বাল্লার ব্রিজের পাশে আমার ছেলের লাশ পাওয়া গেছে। তার ছেলেকে হত্যা করে ডোবায় লাশ ফেলে দেয়া হয়েছে বলে তিনি দাবি করেন।

কিশোরের লাশ উদ্ধারের সত্যতা স্বীকার করে বিশ্বনাথ থানার অফিসার ইন-চার্জ (ওসি) শামীম মুসা বলেন, ঘটনাস্থলে পুলিশ অবস্থান করছে।