আজ ১১ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২৭শে অক্টোবর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

মানহীন সুরক্ষা সামগ্রী তৈরি হচ্ছে রংপুরে

প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক: আজ ১৪ অক্টোবর ৫১ তম বিশ্ব মান দিবস। ‘পৃথিবী সুরক্ষায় মান’- এ প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশেও যখন দিবসটি যথাযথ মর্যাদার সঙ্গে পালিত হচ্ছে, তখন মানহীন পণ্যসামগ্রীতে ভরে গেছে উত্তরের জেলা রংপুর।

 

বিভাগীয় শহর রংপুরের মানুষজন করোনাকালেও বিভিন্ন পণ্যসামগ্রী কিনতে প্রতারণার শিকার হচ্ছেন প্রতিনিয়ত। অসাধু ব্যবসায়ীরা বাড়িতেই তৈরি করছেন সুরক্ষাসামগ্রী আর নকল হ্যান্ড স্যানিটাইজার, ফ্লোর ক্লিনার, টাইলস পুডিং, ভিক্সলসহ বিভিন্ন পণ্য।

 

করোনার সংক্রমণ থেকে বাঁচতে স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রীর চাহিদা বেড়েছে রংপুরেও। এই সুযোগ কাজে লাগিয়ে বাজারে নকল সামগ্রী বিক্রি করছেন অসাধু ব্যবসায়ীরা। কেউ কেউ বাড়িতেই গড়ে তুলে গোপনে তৈরি করছে নকল হ্যান্ড স্যানিটাইজার, ফ্লোর ক্লিনার, টাইলস পুডিং, ভিক্সলসহ বিভিন্ন পণ্য সামগ্রী। বাজারে এসব নকল পণ্য বিক্রি হচ্ছে কয়েকগুণ বেশি দামে। তবে অভিজাত ব্র্যান্ডের মোড়কে বাজারজাত করা মানহীন নকল সুরক্ষা সামগ্রীর বিক্রি বন্ধ করার লক্ষ্যে অসাধু ব্যবসায়ী চক্রের বিরুদ্ধে অভিযানে নেমেছে প্রশাসন।

 

সম্প্রতি নগরীর কয়েকটি প্রতিষ্ঠানে অভিযান চালিয়েছে রংপুর মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ। এসময় মধ্য বাবুখাঁ এলাকার একটি বাড়ি ও বেতপট্টি মোড়ের দুটি দোকান হতে সাড়ে তিন লাখ টাকার বিপুল পরিমাণ নকল পণ্যসামগ্রী উদ্ধার করা হয়। পরে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে জড়িত তিন ব্যক্তিকে ৩৫ হাজার টাকা অর্থদণ্ড অনাদায়ে বিভিন্ন মেয়াদে সাজা প্রদান করা হয়। এসব তথ্য নিশ্চিত করেছে গোয়েন্দা পুলিশ।

 

সূত্র জানায়, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে নগরীর মধ্য বাবুখাঁ এলাকার মৃত আব্দুর করিম মিয়ার ছেলে মোস্তাফিজার রহমানের বসতবাড়িতে অভিযান চালানো হয়। এসময় সেখান থেকে বিপুল পরিমাণ নকল স্যানিটাইজার, ভিক্সল টাইলস ক্লিনার, ভিক্সল টাইলস ক্লিনার তৈরির কেমিক্যাল, পাউডার, খালি বোতল, ড্রাম ও বোতলের গায়ে ব্যবহারের জন্য মজুদ করা স্টিকারসহ সরঞ্জামাদি উদ্ধার করা হয়। এসব নকল সামগ্রীর অনুমানিক মূল্য দুই লাখ টাকা। মোস্তাফিজার রহমান নগরীর গোমস্তাপাড়ার আবু হোজাইফা ডিস্ট্র্রিবিউশন এর স্বত্বাধিকারী।

 

এছাড়া একই দিন সন্ধ্যায় নগরীর বেতপট্টি মোড়ের ধীরেন্দ্র নাথ সরকারের প্রতিষ্ঠান বেনকো হার্ডওয়ার এবং জাহিদ হোসেনের প্রতিষ্ঠান কালার কালেকশান হার্ডওয়ারে অভিযান চালিয়ে বিপুল পরিমাণ নকল ভিক্সল উদ্ধার করা হয়। পরে অসাধু ওই তিন ব্যবসায়ীকে জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আফরিন জাহানের ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে ৩৫ হাজার টাকা অর্থদণ্ড ও অনাদায়ে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড প্রদান করা হয়।

 

একইসঙ্গে উদ্ধার করা নকল পণ্যসামগ্রী ধ্বংস করা হয়। এর আগে নগরীর খাসবাগ এলাকা থেকে বিপুল পরিমাণ নকল স্যাভলন, হ্যান্ড স্যানিটাইজার ও হারপিক উদ্ধার করা হয়।

 

রংপুর মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার (ডিবি এন্ড মিডিয়া) উত্তম প্রসাদ পাঠক জানান, রংপুরে গত ছয় মাসে অবৈধ মজুদদার, ডিলার, নকল প্রসাধনী ও স্বাস্থ্যসুরক্ষা সামগ্রী সরবরাহকারী এবং বিক্রেতাদের বিরুদ্ধে সাঁড়াশি অভিযান পরিচালনা করেছে মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ। ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে উদ্ধার এসব পণ্যের অনুমানিক মূল্য প্রায় ২৮ লাখ টাকারও বেশি। এসব অভিযানে নিয়মিত মামলায় ২৩ জনকে আসামি করা ছাড়াও জরিমানা, অনাদায়ে বিভিন্ন মেয়াদে সাজা প্রদান করা হয়েছে।

 

বিএসটিআই (বাংলাদেশ স্ট্যান্ডার্ডস অ্যান্ড টেস্টিং ইনস্টিটিউট) সূত্র জানায়, সব ধরনের পণ্যের মান নিশ্চিত করা দরকার। তবে বাংলাদেশে খাদ্য, ইলেক্ট্রিক্যাল, কৃষিজাত, কেমিক্যাল, প্রকৌশল ও টেক্সটাইলসহ ১৮১টি পণ্যের বিএসটিআই কর্তৃক মান সনদ থাকা জরুরি।

 

বিএসটিআই’র রংপুরের ফিল্ড অফিসার (সার্টিফিকেশন মার্কস) দেলোয়ার হোসেন প্রথমবার্তাকে বলেন, পণ্যের মান নিয়ন্ত্রণে মাঠপর্যায়ে বিভিন্ন কর্মকাণ্ড পরিচালনা করা হচ্ছে।

 

এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো উদ্বুদ্ধকরণ ও ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা। গত তিন মাসে রংপুর বিভাগের বিভিন্ন এলাকায় ১৮টি ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, একইসময় আড়াই লাখ টাকা জরিমানা আদায় করা হয়েছে।

 

এদিকে, বিশ্ব মান দিবস উপলক্ষে আজ বুধবার রংপুর জেলা প্রশাসন ও বিএসটিআই-এর উদ্যোগে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে আলোচনাসভার আয়োজন করা হয়েছে।