আজ ১৪ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২৯শে নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

গৌরীপুরে সংযোগ সড়ক কেটে ফেলায় জনদুর্ভোগ

প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক: ময়মনসিংহের গৌরীপুর উপজেলার মাওহা ইউনিয়নের মাওহা বাজার হইতে বড়ইকান্ধা ভায়া লোনাপাড়া হয়ে বেখৈরহাটী বাজারে যাওয়ার একমাত্র সংযোগ সরকারি গ্রামীন রাস্তাটি দিন দিন বিলীন ও কেটে ফেলায় ক্ষেতের সরু আইলে পরিণত হয়েছে।

এতে করে কয়েক গ্রামের মানুষের দুর্ভোগ দেখা দিয়েছে। এই রাস্তা দিয়ে প্রতিনিয়ত মাওহা বাজার ও স্কুল কলেজ পড়ুয়া শিক্ষার্থী ও শত শত পথচারী চলাচল করে। রোগীদের কোন হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে কোলে করে নিতে হয়। শুকনো-বর্ষা উভয় মৌসুমেই যেন দুর্ভোগের শেষ নেই।

সরজমিন গিয়ে দেখা যায়, মাওহা বাজার থেকে বড়ইকান্ধা গ্রামের সংযোগ রাস্তাটি এখন বিলীন হয়ে গেছে। সরকারি গ্রামীন রাস্তাটির উভয় পাশের জমির মালিকগণ প্রতি বছর বিভিন্ন কৃষি মৌসুমে রাস্তাটি কেটে দিন দিন ক্ষেতের সরু আইলে পরিণত করে দিয়েছে। এ সংযোগ রাস্তায় গত কয়েক বছর আগে ত্রান ও দূর্যোগ মন্ত্রনালয়ের অধীনে অর্ধ কোটি টাকা মূল্যের দুটি ব্রীজ নির্মিত হলেও নির্মান হয়নি রাস্তা। অপর পাশে রয়েছে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও মসজিদ ঈদগাহ – মাঠ। কয়েক গ্রামের মানুষের জন্য এ সংযোগ রাস্তাটি ছিল খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

উল্লেখ্য যে এই গ্রামীন রাস্তাটিতে মাটি কাটা হয়েছিল ১৯৯৫ সালে ফেব্রুয়ারি মাসে, প্রকল্পের নাম ছিল বড়ইকান্ধা মসজিদ হইতে কড়েহা লোনাপাড়া সীমান্তবর্তী এলাকা কেন্দুয়া উপজেলার ভুইয়াপাড়া গ্রামের সীমানা পর্যন্ত। প্রকল্পের সভাপতি ছিলেন তৎকালীন ইউপি সদস্য আব্দুল জলিল সেই সময়ে ইউপি চেয়ারম্যান ছিলেন আব্দুল মান্নান ফকির। সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুল মান্নান ফকির জানান ১৯৯৫ সালে এই রাস্তাটিতে কাজের বিনিময়ে খাদ্য কর্মসুচী দিয়ে রাস্তাটিতে মাটি কাটা হয়েছিল কিন্তু ২৫ বছর রাস্তাটি সংস্কার না করায় বর্তমানে রাস্তাটির ক্ষেতের আইলে পরিনত হয়েছে রাস্তাটির প্রস্থ ছিল ১২ ফুট দৈর্ঘ্য আড়াই কিলোমিটার (প্রায়) বর্তমানে এই রাস্তাটি সংস্কার করা খুবই প্রয়োজন মনে করি।

স্থানীয়রা আরও জানান বর্তমানে এই রাস্তাটি দিয়ে যাওয়ার কোন উপায় নেই যদি রাস্তাটি দ্রুত সংস্কারের দাবী জানান এলাকাবাসী।