আজ ১৯শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ৪ঠা ডিসেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

এমপির গাড়ি থেকে নেমে নৌবাহিনীর কর্মকর্তা ও তার স্ত্রীকে মারধর

প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক: গাড়ি থেকে বেরিয়ে অন্য একজনকে মারধরের একটি ঘটনার ভিডিও ভাইরাল হয়েছে। প্রত্যক্ষদর্শীরা বলছেন, এমপি হাজী সেলিমের গাড়ি থেকে বেরিয়ে নৌবাহিনীর একজন কর্মকর্তাকে মারধর করা হয়। রবিবার সন্ধ্যার পর ধানমন্ডির কলাবাগান ক্রসিংয়ের কাছে এ ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, ঘটনাস্থলে লোকজন জমে গেলে সাংসদের গাড়ি ফেলে মারধরকারীরা সরে যান। পরে পুলিশ এসে গাড়ি ও মোটরসাইকেলটি থানায় নিয়ে যায়। ভিডিওতে গাড়ির নম্বর দেখা যায় ঢাকা মেট্টো– ঘ ১১-৫৭৩৬। গাড়ীতে হাজী সেলিমের ছেলে ও তার নিরাপত্তাকর্মীসহ কয়েকজন ছিলেন বলে জানা যায়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা বলছেন, নৌকর্মকর্তার মোটরসাইকেলকে ধাক্কা দিয়েছিল সংসদ সদস্যের স্টিকার লাগানো ওই গাড়ি। এরপর উল্টো ওই গাড়ি থেকে কয়েক ব্যক্তি নেমে লেফটেন্যান্ট ওয়াসিম নামের ওই কর্মকর্তাকে মারধর করেন।

পুলিশ সূত্র মতে, ওই গাড়িটি সাংসদ হাজী সেলিমের। ঘটনার সময় তিনি গাড়িতে ছিলেন না। তাঁর ছেলে ও নিরাপত্তারক্ষী ছিলেন। পুলিশ সাংসদের গাড়ি ও নৌবাহিনীর কর্মকর্তার মোটরসাইকেল ধানমন্ডি থানায় নিয়ে এসেছে।

গতকাল রাতে পুলিশ আরো জানায়, দুই পক্ষই থানায়, আলাপ-আলোচনার পর আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত হবে।

জানা গেছে, একজন প্রত্যক্ষদর্শী রাস্তায় জটলা থেকে মোবাইল ফোনে ভিডিও করেন। তাঁর সামনেই সাংসদের গাড়ি থেকে নেমে এসে বাইকের আরোহী এক কর্মকর্তাকে মারধর করা হয়। একপর্যায়ে ওই কর্মকর্তা আত্মরক্ষার চেষ্টা করেন।

ভিডিওতে দেখা যায়, আহত নৌবাহিনীর কর্মকর্তা নিজেকে লেফটেন্যান্ট ওয়াসিম বলে পরিচয় দিচ্ছেন। তিনি বলেন, বই কিনে স্ত্রীসহ মোটরবাইকে ফিরছিলেন। ওই গাড়িটি তাঁর মোটরসাইকেলকে ধাক্কা দেয়। তিনি তখনই মোটরসাইকেল থামান এবং নিজের পরিচয় দেন। গাড়ি থেকে নেমে দুই ব্যক্তি তাঁকে মারধর শুরু করেন। মারধরের কারণে তাঁর (ওয়াসিম) দাঁত ভেঙে গেছে। তাঁর স্ত্রীর গায়েও হাত দিয়েছে বলে অভিযোগ করেন তিনি।

গতকাল রাত ১২ টা পর্যন্ত এ ব্যাপারে এখনো কোনো মামলা হয়নি বলে জানা যাচ্ছে। তবে গাড়ি ও মোটরসাইকেল থানায় আছে।