আজ ১১ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২৬শে নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়কে ভেন্টিলেশনে রাখা হয়েছে

প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক: অভিনেতা সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের শারীরিক অবস্থার আরও অবনতি হয়েছে। গভীর সঙ্কটে রয়েছেন তিনি। ভেন্টিলেশনে রাখা হয়েছে তাকে। রক্তে অনুচক্রিকার পরিমাণের কিছুটা উন্নতি হয়েছে। তবে চিকিৎসকদের উদ্বেগে রেখেছে কিডনির অবস্থার অবনতি। রক্তে ইউরিয়ার পরিমাণ অনেকটাই বেশি।

চিকিৎসকেরা জানিয়েছেন, প্রবীণ অভিনেতার এক্সরে রিপোর্টে নতুন প্যাচ দেখা দিয়েছে। আশঙ্কা, সেকেন্ডারি নিউমোনিয়া সংক্রমণের। অশীতিপর সৌমিত্র গত ২১ দিন ধরে মিন্টো পার্কের একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

আইসিইউতে তিনি রয়েছেন ১৮ দিন। বয়স এবং কো-মর্বিডিটি তার চিকিৎসার পথে বাধা হয়ে দাঁড়াচ্ছে বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা। রক্তে হিমোগ্লোবিন এবং অনুচক্রিকার পরিমাণ কম থাকায় আগেই করা হয়েছে ব্লাড ট্রান্সফিউশন। সেই সঙ্গে চিকিৎসকদের চিন্তায় রেখেছে তার শরীরে সোডিয়াম, পটাশিয়ামের তারতম্য।

করোনা আক্রান্ত অবস্থায় সৌমিত্রকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। গত সপ্তাহে তার করোনা রিপোর্ট নেগেটিভ আসে। চিকিৎসাতেও সাড়া দিতে থাকেন তিনি। কিন্তু সম্প্রতি তার শারীরিক অবস্থা আবার সঙ্কটজনক হয়ে পড়ে। রক্তে অক্সিজেনের পরিমাণে তারতম্য হওয়ায় মাঝে মাঝেই বায়োপ্যাপ সাপোর্ট দেয়া হয়েছে ইতিমধ্যেই।

জটিলতা বাড়িয়েছে মস্তিষ্কে সংক্রমণ অভিঘাত (কোভিড এনসেফ্যালোপ্যাথি) এবং স্নায়বিক অবস্থা। এই পরিস্থিতিতে তার চেতনার মাত্রা ক্রমশ নামছে বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা। তন্দ্রাচ্ছন্ন অবস্থায় রয়েছেন তিনি।

নতুন করে স্নায়ুরোগ সংক্রান্ত জটিলতা দেখা না গেলেও প্রবীণ শিল্পীর উদ্বেগজনক স্নায়বিক অবস্থা চিন্তায় রেখেছে চিকিৎসকদের। তাদের বক্তব্য, আচ্ছন্ন চেতনায় মস্তিষ্কে সংক্রমণের অভিঘাতে রোগীর বয়স ও আনুষঙ্গিক রোগগুলিই বিপজ্জনক হতে পারে।

হাসপাতালের দাবি, স্নায়ুরোগ বিশারদসহ সব চিকিৎসক সৌমিত্রর চেতনা ফেরাতে ইনটিউবেশনের উপরে নির্ভর করছেন।

যাদের বাচ্চা আছে, এই এক গেইমে আপনার বাচ্চার লেখাপড়া শুরু এবং শেষ হবে খারাপ গেইমের প্রতি আসক্তিও