আজ ১৭ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২রা ডিসেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

করোনার কারণে দীর্ঘ বন্ধ থাকার পর আজ থেকে খুলছে জাতীয় যাদুঘর

প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক: মহামারি করোনা পরিস্থিতির কারণে দীর্ঘ সাত মাস বন্ধ থাকার পর আজ রবিবার (১ নভেম্বর) সীমিত পরিসরে খুলেছে বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘর।

 

দর্শনার্থীরা টিকিট কেটে স্বাস্থ্যবিধি মেনে জাতীয় জাদুঘর আগের মতোই ঘুরে দেখতে পারবেন। তবে স্বাস্থ্য সুরক্ষার জন্য জাদুঘরে প্রবেশের টিকিট আগের মতো কাউন্টারে নয়, বরং অনলাইন থেকে সংগ্রহ করতে হবে। আগের দামেই পাওয়া যাবে টিকিট।

 

আগে প্রতিদিন তিন থেকে চার হাজার মানুষ জাদুঘর পরিদর্শনে যেতেন। তবে পরিস্থিতি বিবেচনায় এখন ৫০০ থেকে ৮০০ এর মধ্যে সীমিত করা হবে বলে জানা গেছে।

 

জাদুঘরের পরিচালক জেনারেল খন্দকার মোস্তাফিজুর রহমান জানান, স্বাস্থ্যবিধি মেনে সীমিত সংখ্যক দর্শনার্থী প্রবেশের সুযোগ পাবেন। সকালের শিফটে ২০০ জন ও বিকেলের শিফটে ৩০০ জনকে প্রবেশের অনুমতি দেওয়া হবে।

 

করোনার কারণে গত ২৬ মার্চ থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য জাদুঘর বন্ধ করে দেওয়া হয়। ছয় মাস পর গত ১৬ সেপ্টেম্বর থেকে সরকার প্রত্নতত্ত্ব বিভাগের অধীনে সমস্ত জাদুঘর ও ঐতিহ্যবাহী স্থানগুলো সীমিত আকারে পুনরায় চালু করে। তবে শাহবাগের জাতীয় জাদুঘর ও রাজধানীর পুরান ঢাকার আহসান মঞ্জিল ভিন্ন ভিন্ন কর্তৃপক্ষের অধীনে পরিচালিত হওয়ায় এতোদিন বন্ধ ছিলো।

 

অনলাইনে টিকিট কাটার পদ্ধতি: অনলাইনে টিকিট কাটার জন্য http://nationalmuseumticket.gov.bd লিংকে গিয়ে ‘Buy Ticket’ নির্বাচন করে প্রয়োজনীয় তথ্য দিয়ে রেজিস্ট্রেশন সম্পন্ন করতে হবে। তারপর ‘Purchase eTicket’ অপশনে ক্লিক করে জাদুঘর ভ্রমণের তারিখ ও টিকিটের সংখ্যা লিখে Add বাটকে ক্লিক দিতে হবে। তবে একাধিক টিকিট কাটতে হলে Add More Ticket অপশনে ক্লিক করতে হবে। এরপর Make Payment অপশনে গিয়ে টাকা পরিশোধ করে Print Ticket অপশনে ক্লিক করে টিকিট প্রিন্ট করে নিতে হবে। জাদুঘর প্রবেশের সময় এই টিকিট দেখাতে হবে।

 

প্রবেশ ফি: প্রাপ্তবয়স্ক বাংলাদেশি নাগরিকদের জন্য জাদুঘরে প্রবেশ ফি আগের মতোই ২০ টাকা ও অপ্রাপ্ত বয়স্কদের জন্য ১০ টাকা রাখা হয়েছে। এছাড়া, সার্কভুক্ত দেশের নাগরিকদের জন্য ৩০০ টাকা এবং অন্য দেশের নাগরিকদের জন্য ৫০০ টাকা প্রবেশ ফি নির্ধারণ করা হয়েছে। ই-ক্রয়ের সময় সব ধরনের টিকিটে ৪ শতাংশ অতিরিক্ত সার্ভিস চার্জ দিতে হবে।