আজ ১০ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২৫শে নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

কাঁঠালবাড়ী-শিমুলিয়া নৌরুটে চলাচল শুরু

প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক: কাঁঠালবাড়ী-শিমুলিয়া নৌরুটে ডাম্ব ফেরিও চলাচল শুরু হয়েছে। গত দুদিন ধরেই অল্প কয়েকটি কেটাইপ ফেরি ও লঞ্চ ও স্পীডবোট চলছে। এনিয়ে সোমবার সকাল থেকে এরুটে লঞ্চ ও স্পীডবোটের পাশাপাশি ৩ টি ডাম্ব ও ৫ টি কেটাইপ ফেরি চালু হলো। ফেরিগুলো জাজিরা পয়েন্টের পদ্মা সেতুর ৩৮ ও ৩৯ নং পিলার সংলগ্ন এলাকা দিয়ে চলাচল করছে। এতে পারাপারে আগের চেয়ে প্রায় আধ ঘন্টা সময় বেশি ব্যয় হচ্ছে।

বিআইডব্লিউটিসি কাঁঠালবাড়ি ঘাট সূত্রে জানা যায়, নাব্যতা সংকটে দীর্ঘ দিন ধরেই কাঁঠালবাড়ি-শিমুলীয়া নৌরুটে ফেরি চলাচল অচলাবস্থা সৃষ্টি হয়েছে। দীর্ঘ ২২ দিন টানা বন্ধ থাকার পর গত শুক্রবার সকাল থেকে জাজিরা পয়েন্টের পদ্মা সেতুর ৩৮ ও ৩৯ নং পিলার সংলগ্ন এলাকা দিয়ে পরীক্ষামূলকভাবে কেটাইপ ফেরি কুমিল্লা, ফরিদপুর, কাকলী, কর্নফুলীসহ ৫ টি ফেরি চলাচল শুরু করে কর্তৃপক্ষ। সোমবার সকাল থেকে ৩ টি ডাম্ব ফেরি চলাচলও শুরু হয়। তবে ফেরিগুলো ধারন ক্ষমতার অনেক কম যানবাহন নিয়ে নতুন চ্যানেল দিয়ে চলাচল করায় আগের চেয়ে প্রায় আধ ঘন্টা সময় বেশি লাগছে। ২২ দিন পর দিনের বেলা সীমিত আকারে ফেরি চলাচল করলেও সন্ধার পর ফেরি বন্ধ রাখা হতো। তবে রবিবার সন্ধার পর থেকে ২/৩ টি ফেরি চালু রেখেছে কর্তৃপক্ষ। তবে সন্ধার পর চলাচলকারী ফেরিগুলো অধিক সতর্কতা অবলম্বন করছে বলে কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে। তবে ফেরি চলাচল এখনো স্বাভাবিক না হওয়ায় উভয় ঘাটে শতাধিক পন্যবাহী ট্র্রাক পারাপারের অপেক্ষায় আটকে রয়েছে।

এদিকে নব্যতা সংকটের কারনে এরুটে চলাচলকারী লঞ্চ ও স্পীডবোট গুলোও প্রায়ই ডুবোচরে আটকে যাচ্ছে। ডুবোচরে ধাক্কা লেগে এপর্যন্ত বেশ কয়েকটি লঞ্চের তলা ফেটে ডোবারও উপক্রম হয়েছিল।

বিআইডব্লিউটিসি’র কাঁঠালবাড়ী ঘাট টিআই মোঃ আখতার হোসেন বলেন, লঞ্চ ও স্পীডবোটের পাশাপাশি রবিবার রাতভর ২/৩ টি কেটাইপ ফেরি ৫টি কেটাইপ ও ৩টি ড্রাম ফেরি সতর্কতার সাথে চলাচল করেছে। তবে লঞ্চ মাঝে মাঝেই ডুবুচরে ধাক্কা খেয়ে তলা ফেটে যাছে। আজ সোমবার সকাল থেকে তিনটি ডাম্ব ফেরিও চালু রয়েছে। নাব্যতা সংকট নিরসনে ড্রেজিং চলছে।

কাঁঠালবাড়ী ঘাটের লঞ্চ মাস্টার মোঃ হানিফ বলেন, এরুটে লঞ্চ গুলোও প্রায়ই ডুবোচরে আটকে যাচ্ছে। ডুবোচরে ধাক্কা লেগে এপর্যন্ত বেশ কয়েকটি লঞ্চের তলা ফেটেছে। এখন কিছুটা ভালো অবস্থা আছে, তবে ড্রেসিং ঠিকঠাক কাজ করতে থাকলে আর কোন সমস্যা হবে না।