আজ ১৯শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ৪ঠা ডিসেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

রায়হান হত্যায় তদন্ত ভার নেয়া পিবিআইয়ের ৫ ইন্সপেক্টর করোনা পজিটিভ

প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক: সিলেটে পুলিশ হেফাজতে নির্যাতনে রায়হান আহমদ (৩৪) হত্যা মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (পিবিআই) পাঁচ ইন্সপেক্টর, এক এসআই ও দুই কনস্টেবল করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন।

তারা হলেন- পিবিআইয়ের ইন্সপেক্টর মুহিদুল ইসলাম, জাহাঙ্গীর আলম, শহিদুল ইসলাম, কামরুজ্জামান, তালাব মাহমুদ, এসআই লিটন চন্দ্র পাল ও কনস্টেবল স্বপন চন্দ্র দাস, সজিব।

তাদের মধ্যে দুই ইন্সপেক্টর ও কনস্টেবল সজিব সিলেট বিভাগীয় পুলিশ হাসপাতালে আর কনস্টেবল স্বপন রাজারবাগ পুলিশ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। বাকিরা নিজ নিজ বাসায় আইসোলেশনে আছেন।

যুগান্তরকে এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন পিবিআই সিলেটের পুলিশ সুপার খালেদ-উজ-জামান।

উল্লেখ্য, সিলেট নগরীর আখালিয়া নেহারীপাড়ার বাসিন্দা রায়হানকে ১০ অক্টোবর রাতে সিলেটের বন্দরবাজার ফাঁড়িতে তুলে নিয়ে নির্যাতন করা হয়।

পর দিন রায়হান মারা যান। এ ঘটনায় তার স্ত্রী বাদী হয়ে মামলা করলে এসএমপির একটি অনুসন্ধান কমিটি তদন্ত করে সত্যতা পায়।

১২ অক্টোবর ফাঁড়ির ইনচার্জের দায়িত্বে থাকা এসআই আকবর হোসেন ভূঁইয়াসহ চারজনকে সাময়িক বরখাস্ত ও তিনজনকে প্রত্যাহার করা হয়।

১৩ অক্টোবর আকবর পুলিশি হেফাজত থেকে পালিয়ে গা-ঢাকা দেয়।

এসএমপি সূত্র জানায়, আকবরের পালিয়ে যাওয়ার বিষয়টি তদন্ত করে পুলিশের সদর দফতরের তিন সদস্যের একটি কমিটি। আকবরকে পালাতে সহায়তা করার অভিযোগে ফাঁড়ির ‘টুআইসি’ পদে থাকা এসআই হাসান উদ্দিনকে ২১ অক্টোবর সাময়িক বরখাস্ত করা হয়।

আকবরের পলায়নে সমালোচনার মুখে বদলি করা হয় এসএমপি কমিশনার গোলাম কিবরিয়াকে।

তার জায়গায় পুলিশের স্পেশাল প্রোটেকশন ব্যাটালিয়নের (এসপিবিএন) ডিআইজি পদে থাকা মো. নিশারুল আরিফকে দায়িত্ব দেয়া হয়।

গত মঙ্গলবার রাতে তিনি এসএমপি কমিশনারের দায়িত্ব নিয়েছেন।