আজ ১৭ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২রা ডিসেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

মিশিগানে ট্রাম্পের মামলা খারিজ করে দিলেন বিচারক

প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক:  যুক্তরাষ্ট্রে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে মিশিগানের ভোট গণনা স্থগিত চেয়ে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের নির্বাচনী দলের এক মামলা খারিজ করে দিয়েছেন অঙ্গরাজ্যটির এক বিচারক।

মামলা করতে দেরি হওয়ায় আদালত থেকে এমন সিদ্ধান্ত আসলো বলে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি জানায়।

মিশিগানের ফার্স্ট ডিস্ট্রিক্ট অ্যাপিলস কোর্টের বিচারক সিনথিয়া স্টিভেন্স বলেন, ‘মামলাটি দায়ের হতে অনেক দেরি হয়েছে, কারণ গণনা শেষ হতে মাত্র কয়েক ঘণ্টা বাকি।’

তিনি বলেন, ‘মামলায় ভুল কর্মকর্তাকে বিবাদী করা হয়েছে।’

ভোট গণনা প্রক্রিয়ায় কোনোভাবে হস্তক্ষেপ করার আইনগত ক্ষমতা অঙ্গরাজ্যের সেক্রেটারি অব স্টেটের নেই বলে তিনি জানান।

প্রেসিডেন্টের নির্বাচনী প্রচার কর্মকর্তারা যুক্তি দেন যে, গণনার সময় রিপাবলিকান পর্যবেক্ষকদের হাজির থাকা উচিত।

সর্বশেষ ভাগ্য নির্ধারণকারী চারটি অঙ্গরাজ্যের ভোট গণনা বন্ধের জন্য মামলা করে ট্রাম্প টিম। জর্জিয়া, মিশিগান, পেনসিলভানিয়া ও উইসকনসিনের ভোট গণনায় আইনি চ্যালেঞ্জ জানায় রিপাবলিকানরা।

তবে ততক্ষণে মিশিগান ও উইসকনসিন রাজ্যে জয়ী ঘোষণা করা হয়েছে ট্রাম্পের প্রতিদ্বন্দ্বী জো বাইডেনকে।

করোনার কারণে এবার রেকর্ড পরিমাণ আগাম ভোট পড়ায় সেগুলো গণনায় বিলম্ব দেখা দেয়। এতে জালিয়াতির অভিযোগ তুলে ভোট গণনা বন্ধে এ মামলা করেন ট্রাম্প।

যদিও মার্কিন নির্বাচনে কারচুপি হয়েছে বলে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প যে অভিযোগ করেছেন তাকে পাত্তা দিতে নারাজ আন্তর্জাতিক একটি পর্যবেক্ষক মিশন।

দ্য অর্গানাইজেশন ফর সিকিউরিটি অ্যান্ড কো-অপারেশন ইন ইউরোপ বা ওএসসিই নামে সংস্থাটি বলেছে, ‘কভিড-১৯ এর কারণে নানা ধরনের চ্যালেঞ্জ সত্ত্বেও নির্বাচনটি প্রতিযোগিতামূলক এবং ভালোভাবে পরিচালিত হয়েছে।’

এদিকে ফক্স নিউজের হিসাব মতে, ২৬৪টি ইলেক্টোরাল কলেজ ভোট নিয়ে চূড়ান্ত বিজয়ের কাছাকাছি বাইডেন। অন্যদিকে রিপাবলিকান প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্প পেয়েছেন ২১৪টি ইলেক্টোরাল।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট হওয়ার জন্য ৫৩৮টি ইলেক্টোরাল কলেজের জন্য লড়েছেন প্রার্থী দু’জন। জয় পেতে দরকার দুই-তৃতীয়াংশ ইলেক্টোরাল, অর্থাৎ ২৭০টি।

  

তবে নির্বাচনে নিজের জয় দাবি করে ট্রাম্প গুরুত্বপূর্ণ চারটি অঙ্গরাজ্যের ভোট গণনার উপর মামলা করা ফলাফল প্রকাশ নিয়ে জটিলতার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে।